ডেস্ক: ‘কথায় বলে রাখে হরি মারে কে?’ ঠিক একইরকম ভাবে উল্টোটাও বোধহয় হয়, মৃত্যু যার কপালে নিশ্চিত তাঁকে বাঁচায় কে? পাহাড়ের চূড়ায় খাদের কিনারে হেলিকপ্টার ভেঙে পড়ার পর, মৃত্যুকে ধোঁকা দিকে উদ্ধারের অপেক্ষায় ছিলেন ভেঙে পড়া সেই হেলিকপ্টারের পাইলট। তাঁকে উদ্ধার করতে আসে উদ্ধারকারী দল। সেই উদ্ধারকারী দলের হেলিকপ্টার দুর্ঘটনাতেই মৃত্যু হল উদ্ধারের অপেক্ষায় থাকা ইভান অ্যানড্রেস লোপেজ লন্ডোনো নামে ওই ব্যক্তির। তাঁর মৃত্যুর সেই ভয়াবহ ভিডিও ভাইরাল হয়ে উঠল সোশ্যাল মিডিয়ায়।

জানা গিয়েছে, কলম্বিয়ার পাহাড়ি এলাকা কিউকায় নিজের হেলিকপ্টার সহ নিখোঁজ হয়ে যায় ইভান। ওই পাহাড়ের চূড়ার খাদের ধারে দুর্ঘটনার কবলে পড়া সেই কপ্টার থেকে বেরিয়ে কোনওমতে বাঁচার জন্য লড়াই চালাতে থাকেন তিনি। খাবার ও জল ছাড়া উদ্ধারের আশায় কোনওমতে ৭ দিন সেখানে কাটান সেখানে। তাঁর খোঁজে তল্লাশি চালাতে গিয়ে পাহাড়ের উপর তাঁর দুর্ঘটনাগ্রস্ত হেলিকপ্টারটির দেখা পায় উদ্ধারকারী দল। তাঁকে উদ্ধারের জন্য হেলিকপ্টার থেকে নেমে আসে দুই উদ্ধারকারী। তাঁদের একজন কিছুটা দূরে উদ্ধারের পুরো ঘটনার ভিডিও করতে থাকে। অন্যজন হেলিকপ্টারকে ঠিকমতো ল্যান্ডিং করানোর জন্য পাইল্টকে নিচ থেকে নির্দেশ দিতে থাকে। আর সেখান থেকে কিছুটা দুরেই দাঁড়িয়ে ছিলেন উদ্ধারের আশায় থাকা ইভান। তখনই ঘটে যায় ভয়ংকর ঘটনা।

পাহাড়ের উপর প্রবল প্রবল হাওয়ার ফলে খাদের কিনারে ধীরে ধীরে নামতে থাকা হেলিকপ্টারটি হঠাৎ নিয়ন্ত্রন হারিয়ে হুমড়ি খেয়ে পড়ে। মুহূর্তের মধ্যে উদ্ধারের আশায় পাশে দাঁড়িয়ে থাকা ইভানের শরীর ছিন্নভিন্ন হয়ে যায় হেলিকপ্টারের ব্লেডে। কিছুটা দূরে দাঁড়িয়ে থাকা উদ্ধারকারী দলের একজনের ক্যামেরায় ঘটনাবন্দী হয় গোটা দৃশ্য। কিছুদিন আগেই প্রকাশ্যে আসে এই ঘটনার ভিডিও ফুটেজ, তারপরই তা ভাইরাল হয়ে যায় সোশ্যাল মিডিয়ায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here