national news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: বিশ্বাস ছিল, বিশ্বাস ছিল সমস্ত বাধা পেরিয়ে একদিন ঘরে ঠিক পৌঁছবে তারা৷ সেই বিশ্বাসের ডানায় ভর করে আর রিক্সার প্যাডেলে পা রেখে আজ থেকে ৮ দিন আগে গুরগাঁও থেকে রওনা দিয়েছিলেন ১১ জন রিক্সাচালক৷ সেই তিন চাকা নিয়েই প্রায় হাজার কিলোমিটার পথ অতিক্রম করে বিহারে নিজের বাড়িতে পৌঁছলেন ১১ জন রিক্সাচালক৷

২৫ মার্চ থেকে লকডাউন শুরু হওয়ার পর থেকেই কাজ বন্ধ হয়ে যায় তাদের৷ যার ফলে লক্ষ লক্ষ পরিযায়ী শ্রমিকদের মতো তারাও নিজের বাড়ি ফেরার জন্য ব্যাকুল হয়ে পড়েন৷ তবে এত দূর পথ তারা অতিক্রম করবেন কীভাবে? এই প্রশ্নই রিক্সাচালকদের মাথায় ঘুরপাক খেতে থাকে৷

কেন্দ্রীয় সরকারের চালু করা বিশেষ শ্রমিক ট্রেনের ওপর ভরসা রাখতে পারেননি তারা৷ শেষমেশ ১১ জন ঠিক করেন নিজেদের ‘সদাসর্বদার বাহন’টি নিয়েই তারা ফিরবেন ঘরে৷ সেইমত বাক্সপ্যাটরা রিক্সায় বোঝাই করে শুরু করেন যাত্রা৷ গুরগাঁও থেকে বিহার যাত্রা মুখের কথা নয়৷ প্রায় ১০০০ কিলোমিটার পথ৷ ১৭ মে রিক্সা চালিয়ে বাড়ির উদ্দেশে রওনা দেন ওই রিক্সাচালকেরা৷ খিদেয় ভরা পেটকে বশ মানিয়ে এবং রাস্তায় পুলিশের কড়াকড়ি এড়িয়ে শেষপর্যন্ত নিজেদের ঘরে পৌঁছতে সক্ষম হন এনারা৷

এদের মধ্যে ভারত কুমার নামের এক রিক্সাচালক এক সর্বভারতীয় সংবাদসংস্থাকে জানিয়েছেন, “লকডাউন শুরু হওয়ার পর থেকে আমাদের কাছে আর টাকাও ছিল না আর খাবারও ছিল না৷ তাই আমরা ঠিক করি গ্রামে ফিরে যাব৷ একদিকে কাজ নেই অন্যদিকে বাড়ি ভাড়া দেওয়ার জন্যও ক্রমাগত তাগাদা দিয়ে যাচ্ছিল বাড়ির মালিক” তিনি আরও জানান, বাকীদের মতও তারাও শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনের জন্য নাম নথিভুক্ত করেছিলেন৷ এক একটা করে দিন চলে যাচ্ছিল কিন্তু ফোন আসেনি৷ এইভাবে আর কতদিন অপেক্ষা করতাম আমরা? প্রশ্ন রিক্সাচালকের৷

এরপরই তারা রিক্সা করে বাড়ির দিকে রওনা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন৷ প্রায় ১০৯০ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করে ঘরে ফেরেন তারা৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here