এক ‘রবিবার’-এ হঠাৎ দেখা প্রসেনজিত-জয়ার

0
437

মহানগর ওয়েবডেস্ক: আত্মঅনুসন্ধানের গল্প, একটা জীবনের অনুসন্ধানের গল্প। মূলত দু’জনকে ঘিরে ধরেই হচ্ছে আবর্তিত। জাতীয় পুরস্কার জয়ী অতনু ঘোষ তাঁর আগামী সিনেমা ‘রবিবার’-এর চিত্রনাট্য বুনছেন ঠিক এইভাবেই। কিছুদিন আগেই আনুষ্ঠানিক প্রকাশ হয়ে গিয়েছে ‘রবিবার’ সিনেমার। ‘ময়ূরাক্ষী’ ‘বিনিসুতো’ সিনেমার পর এবার ‘রবিবার’। জুটিতে প্রথমবার দেখা যাবে জয়া এহসান ও প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়কে। মূলত জটিল মনস্তত্বের কাহিনী নিয়ে বানানো হয়েছে এই সিনেমাটি। ইতিমধ্যেই গত বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়েছে ‘রবিবার’ সিনেমার শ্যুটিং।

দু’জনের চরিত্র অসীমাভ চরিত্রে প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় ও সায়নীর চরিত্রে জয়া এহসান। একজন ছকভাঙা ও বোহেমিয়ান ব্যক্তি অসীমাভের সঙ্গে অত্যন্ত পারদর্শী ও বুদ্ধিদীপ্ত মেয়ে সায়নীর হঠাৎ দেখা। পুরানো একটা ভালোবাসা যা বর্তমান রয়ে গিয়েছে দু’জনের মধ্যে। কিন্তু এই ভালোবাসাই পরিণতি পায় ক্ষতবিক্ষত হয়ে। শত চেষ্টাতেও ফিরে যাওয়া যাবে না সেই পুরানো রাস্তাতে। প্রত্যেক মানুষের জীবনে একটি এমন দিন থাকে যেটা তাঁদের গোটা জীবনটাই বদলে দিতে পারে। সেটাই ঘটেছে অসীমাভ ও সায়নীর জীবনে। একটি রবিবার যেটা বদলে দেয় উভয়ের জীবনের রোড ম্যাপ। কিন্তু তারপরেও ১৫ বছর পর দেখা হওয়ার পড়েও কীভাবে একটা গোটা দিন কাটিয়ে দেয় দুই পুরানো প্রেমীক সেটাই মূল বিষয়বস্তু।

‘রবিবার’ শুধু একটা দিনের গল্প নয় এই কলকাতার বুকে দুটি জলজ্যান্ত মানুষের জার্নির গল্প যেটা ১৫ বছর আগে কোথাও গিয়ে হারিয়ে গিয়েছিল হয়ত মিলতে চাইছে আবার। ফের একবার শহরের অলি-গলিতে জড়িয়ে নিজের গল্প সাজিয়েছেন পরিচালক অতনু ঘোষ। মনস্তত্বের উপর সাজিয়ে ফের একবার দর্শক দরবারে নিয়ে আসছেন নতুন জুটির ছুটির দিনের অর্থাৎ ‘রবিবার’-এর গল্প। সিনেমাটির প্রযোজনার দায়িত্বে রয়েছে ইকো এন্টারটেইনমেন্ট।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here