ডেস্ক: তার দেখা না মিললেও, মিলল তার আস্তানার হদিশ। তিনি ঘাপটি মেরে রয়েছেন চন্দ্রকোনার নয়াবসতের জঙ্গলে। এখন সেখানেই তাকে পাকড়াও করার ফন্দি নিয়ে ফাঁদ পাতছেন বনদপ্তরের কর্মীরা। যদি খাঁচাবন্দী করা যায় বাঘমামাকে। রাজ্যের জঙ্গলমহল এলাকায় দিন দশেক ধরে দাপিয়ে বেড়ানো বাঘ গতকালই হানা দিয়েছিল গড়বেতার গোয়ালতোড়ের কুশকাঠির জঙ্গলে।

বনদপ্তর সূত্রে জানা যাচ্ছে, সেখানে তার ঘাপটি মেরে লুকিয়ে থাকার খবর বনদপ্তরের কর্মীরা জঙ্গল লাগোয়া গ্রামের বাসিন্দাদের মারফত আগেই পেয়ে গিয়েছিল। সেই জঙ্গলেই খাঁচা আর ঘুমপাড়ানি ইঞ্জেকশান নিয়ে তৈরি ছিলেন বনকর্মীরা। কিন্তু হঠাৎ করেই সেই জঙ্গলে ঢুকে পড়েও স্থানীয় গ্রামবাসীদের একটি দল। তারা সরাসরি বাঘের মুখে পড়ে গেলে ভয়ে তার দিকে তীর ছুঁড়তে শুরু করে। তাতেই বাঘটি তাদের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়লে জয়রাম সোরেন নামে এক গ্রামবাসী আহত হন। তাকে প্রথমে গড়বেতা মহকুমা গ্রামীন হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলেও পড়ে রেফার করা হয় মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। বনদপ্তরের কর্মীদের বক্তব্য, গতকাল কুশকাঠির জঙ্গলে গ্রামবাসীরা আচমকা ঢুকে না পড়লে তারা বাঘটিকে ঘুমপাড়ানি ইঞ্জেকশান দিয়ে ঠিকই কাবু করতে পারতেন।

এদিকে সোমবার থেকে শুরু হয়েছে মাধ্যমিক পরীক্ষা। ভিন্ন স্কুলে সিট পড়া পরীক্ষার্থীদের বাড়ি থেকে সেখানে যেতে যাতে কোন অসুবিধা না হয় তার জন্য মোবাইল ভ্যান নিয়ে রাস্তায় টহল দেওয়ার কাজ শুরু করেছেন বনকর্মীরা। খোলা হয়েছে বিশেষ হেল্পলাইনও। সেই সঙ্গে চলছে মাইক নিয়ে প্রচার যাতে গ্রামের বাইরে কেউই একা না যায়। বনদপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, বাঘ চন্দ্রকোনার নয়াবসতের জঙ্গলে ঘাপটি মেরেছে সেটা বুঝতে পেরেই বনকর্মীরা সেখানে রওনা দিয়েছেন। এখন দেখার বিষয় বাঘমামা কবে কাবু হন ঘুমপাড়ানি ইঞ্জেকশানে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here