kolkata news
Parul

নিজস্ব প্রতিনিধি : বিপর্যয় থেকে শিক্ষা নিয়ে রাজ্য থেকে দিল্লির ছায়া সরাচ্ছে আরএসএস! এবার সংগঠনের গুরুত্বপূর্ণ পদে বসানো হচ্ছে বাঙালি নেতাদের। বিদ্যুৎ মুখোপাধ্যায়, সুব্রত চট্টোপাধ্যায়ের মতো পুরানো সংঘ সৈনিকদের গুরুত্বপূর্ণ পদ দেওয়া হচ্ছে বলে গেরুয়া শিবির সূত্রে খবর।

ads

এতদিন পশ্চিমবঙ্গ, ওড়িশা ও আন্দামানের দায়িত্বে থাকা প্রদীপ জোশীকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। তাঁর স্থলাভিষিক্ত হচ্ছেন রমাপদ পাল। কেবল রমাপদ নন, সুব্রত এবং বিদ্যুৎকেও দেওয়া হবে উচ্চ পদ।  সংঘ সূত্রে খবর, গত লোকসভা নির্বাচনে এ রাজ্যে ১৮টি আসন পায় বিজেপি। তার আগের লোকসভা নির্বাচনে তারা পেয়েছিল মাত্র দুটি আসন। গত লোকসভা নির্বাচনে সংঘের স্বয়ংসেবকরা মাঠে নামায় ওই ফল হয়েছিল বলে গেরুয়া শিবিরের ধারণা। প্রাক্তন সংঘ প্রচারক দিলীপ ঘোষের নেতৃত্বেই মিলেছিল সাফল্য। শুধু দিলীপ নন, তাঁর সঙ্গে একাসনে সেদিন ছিলেন আরও দুজন। এঁরা হলেন সুব্রত চট্টোপাধ্যায় ও বিদ্যুৎ মুখোপাধ্যায়। সংঘের ধারণা, সেবার দিলীপ-সুব্রত-বিদ্যুৎ এই ত্রয়ীর মগজমিটারেই বাজিমাৎ হয়েছিল।

লোকসভা নির্বাচনে ১৮টি আসন জয়ের পরেই সংঘের পূর্বক্ষেত্রের দায়িত্বে আসেন প্রদীপ জোশি। তিনি কৈলাস বিজয়বর্গীয়, শিবপ্রকাশ চৌহান এবং অরবিন্দ মেননের ঘনিষ্ঠ। প্রদীপ আসায় সংঘ নেতারা ভেবেছিলেন কৈলাস, শিবপ্রকাশ এবং অরবিন্দ এই চতুষ্টয়ের মাধ্যমেই পূরণ হবে বঙ্গবিজয়ের স্বপ্ন। যদিও তা হয়নি। এমনকি বিজেপির লক্ষ্যমাত্রা ২০০ আসনেও পৌঁছতে পারেনি বিজেপি। লক্ষ্যমাত্রার মাত্র এক তৃতীয়াংশ আসন পেয়েছে বিজেপি। সেই কারণেই পুরানো রসায়নেই ফিরছে সংঘ। তারা চাইছে, বাংলাভাষী বিদ্যুৎ-সুব্রতকে দিয়ে কিস্তিমাত করাতে। এখন দেখার, দাবার ঘুঁটি অদলবদল করে বাজিমাত হয় কি না!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here