ডেস্ক: এমনিতে ধর্মীয় গোঁড়ামির বদনাম রয়েছে রাষ্ট্রীয় স্বয়ং সেবক বা আরএসএসের। তবে এবার মুসলিম ছেড়ে সরাসরি মাদার টেরেজার দিকে আঙুল তুলল তাঁরা। ভারতের গর্ব মাদারের ভারত রত্ন কেড়ে নেওয়ার দাবিতে সওয়াল করল ধর্মীয় এই সংগঠন আরএসএস।

ঝাড়খণ্ডের রাঁচির মিশনারিজ অফ চ্যারিটির হোম থেকে শিশু চুরির ঘটনায় দেশ জুড়ে শুরু হয়েছে শোরগোল। ঘটনার তদন্তে নেমে ইতিমধ্যেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে এক মহিলা সহ দুই সন্ন্যাসিনীকে। এর ঠিক পরেই আরএসএসের অভিযোগ, সেবার নামে মানুষকে ধর্মান্তকরণের র‍্যাকেট চালানো হয় এই সংস্থাগুলিতে। তাদের আরও দাবি, একটা নয় এমন একাধিক চ্যারিটিতে চলে শিশু বিক্রি চক্র। চলে নাবালিকাদের যৌন হেনস্থাও। আরএসএসের দিল্লি শাখার প্রধান রাজীব তুলি জানান, ‘ওই সংস্থার সন্ন্যাসীরাই স্বীকার করেছেন সেখানে ধর্মান্তকরণ চলে। বহুদিন ধরেই এই নিয়ে সরব তাঁরা। এখন সবটাই প্রকাশ্যে চলে এসেছে এর বিস্তারিত তদন্ত হোক। এবং মাদারকে ভারত সরকারের তরফে দেওয়া ভারতরত্ন কেড়ে নেওয়া হোক। তবে শুধু আরএসএস নয়, মাদারের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে বিশ্ব হিন্দু পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সুরেন্দ্র জৈনও। ঝাড়খণ্ড ইস্যুতে তিনি বলেন, ‘অবিলম্বে এই শিশু চুরির ঘটনার তদন্ত করা হোক।’

উল্লেখ্য, শিশু চুরির এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসার পর রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী এই ঘটনার পর অভিযোগের আঙুল তুলেছেন বিজেপির দিকেই। তিনি বলেন, ‘মাদারের বদনাম করতেই চক্রান্ত করে অপপ্রচার চালাচ্ছে বিজেপি।’ তিনি আরও বলেন, মাদার নিজের চেষ্টায় এই সংস্থা গড়ে তুলেছেন। কেউ যদি দোষী হয় তাঁকে শাস্তি দেওয়া হোক পুরো সংস্থাকে নয় মাদার আমাদের গর্ব।’ ঠিক তারপরই এবার মাদারের ভারতরত্ন কেড়ে নেওয়ার দাবিতে সরব হল হিন্দু সংগঠনগুলি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here