ডেস্ক: হিন্দুত্বের মুখোশধারী আরএসএসের কাছে সম্প্রীতির বার্তা কিছুটা বেমানান লাগলেও, এবার সেটাই করে বসল রাষ্ট্রীয় স্বয়ং সেবক দল। আগস্ট মাসে নাগপুরে হতে চলেছে আরএসএসের সমাবর্তন অনুষ্ঠান। যেখানে উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে ভারতের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জির। সেখানেই নজিরবিহীন ভাবে ঈদ মিলন উৎসব পালনের সিদ্ধান্ত নিল বিজেপিকে পরিচালনাকারী এই সংগঠন।

প্রতি বছর সঙ্ঘ পরিবারের মুসলিম শাখা মুসলিম রাষ্ট্রীয় মঞ্চ ইফতার পার্টির আয়োজন করে দেশের নানান প্রান্তে। যার নেতৃত্বে রয়েছেন আরএসএসের নেতা ইন্দ্রেশ কুমার। এই বছর মুসলিম রাষ্ট্রীয় মঞ্চের তরফে আরএসএসকে প্রস্তাব দেওয়া হয় নাগপুরে আরএসএসের সদরদপ্তরে ইফতার পার্টির আয়োজন করা উচিত। কিন্তু প্রথমে আরএএসের শীর্ষ নেতৃত্বের তরফে এই প্রস্তাব মানা না হলেও পরে তা মেনে নেওয়া হয়। আরএসএসের তরফে প্রথমে জানানো হয়, এই বছর সঙ্ঘের স্বেচ্ছাসেবকদের তৃতীয় বর্ষের কোর্সের বিশেষ অধিবেশন রয়েছে যার ফলে সেখানে ইফতার পার্টি দেওয়া সম্ভব নয়। কর্তৃপক্ষের এহেন সিদ্ধান্তে নাখুশ হয় মুসলিম সদস্যরা। তাঁদেরকে খুশি রাখতে এককথায় বাধ্য হয়েই এই ঈদ মিলন উৎসবের আয়োজন করছে রাষ্ট্রীয় স্বয়ং সেবক।

উল্লেখ্য, ১৯২৫ সালে আরএসএস সংগঠন তৈরি হলেও, দেশের পরিস্থিতি বিচার করে ২০০২ সালে প্রথমবার আরএসএসের তরফে প্রথমবার তৈরি করা হয় মুসলিম সংগঠন। এই সংগঠনের পিছনে মূল কারন ছিল অযোধ্যায় রামমন্দির সহ নানান ইস্যুতে মুসলিম সমাজের সমর্থন আদায় করে নেওয়া। তবে হিন্দুত্বের মুখোশ যেভাবে আরএসএসের মুখে চেপে বসে আছে তাতে এই ইফতার পার্টির মাধ্যমে মুসলিম সমাজকে আরএসএস কতটা কাছে আনতে পারবে তা প্রশ্ন তুলে দেয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here