ডেস্ক: ২০১৯-এ একদিকে মমতার টার্গেট দিল্লি, অন্যদিকে পশ্চিমবঙ্গকে পাখির চোখ করে রেখেছে বিজেপি। আসন্ন লোকসভায় ২০টির বেশি আসন পেতে সর্বশক্তি দিয়ে এ রাজ্যে ঝাঁপাচ্ছে বিজেপি। সেই উদ্দেশ্য সাধনে এবার কৈলাস বিজয়বর্গীয়র পাশাপাশি অরবিন্দ মেননকে রাজ্য বিজেপির পর্যবেক্ষক রূপে নিযুক্ত করল কেন্দ্রীয় সরকার।

মূলত মধ্যপ্রদেশের ডাকাবুকো বিজেপি নেতা হিসেবেই পরিচিত ছিলেন কৈলাস। কিন্তু আর কয়েকমাস পরেই মধ্যপ্রদেশের বিধানসভা নির্বাচন। তাই সেই রাজ্যে ভোটের কাজে থাকতে হবে কৈলাস বিজয়বর্গীয়কে। কিন্তু ২০১৯ সালের আগে দীর্ঘদিন এই রাজ্যের দায়িত্বে থাকা কৈলাসকে এখনই সরিয়ে দিতে চাইছে না বিজেপি। তাই কৈলাসের পাশাপাশিই মেননকেও এই রাজ্যে পর্যবেক্ষকের ভূমিকায় নিয়োগ করল কেন্দ্র।

তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে, কৈলাসের মতোই অরবিন্দ মেননও আরএসএসের থেকেই উঠে এসেছেন। সেই কারণেই বঙ্গ গেরুয়া শিবিরের রাশ সেই বিজেপির পিতৃ সংগঠনের হাতেই রাখার চেষ্টা করছে কেন্দ্র। বহুদিন ধরেই জল্পনা চলছিল, বাংলার পর্যবেক্ষকের ভূমিকা থেকে সরানো হতে পারে কৈলাসকে। তবে সে সম্ভাবনায় জল ঢেলে তাঁকে রেখেই দলের শক্তি আরেকটু বৃদ্ধি করল বিজেপি। মেনন নিজে মালয়ালি বটে, তবে বাংলায় যথেষ্ট দখল রয়েছে তাঁর।

আরএসএসের এই অভিজ্ঞ নেতা মূলত সঙ্ঘ প্রচারের দায়িত্বে ছিলেন। কৈলাসের সঙ্গেও তাঁর সমীকরণ ভাল বলেই সুবিদিত। কারণ, দুই নেতাই মধ্যপ্রদেশে একসময় দীর্ঘদিন সংগঠনের ভার সামলেছেন। ফলে মেননের হাতে বাংলার দায়িত্ব তুলে দেওয়া হলে কৈলাসের কাছ থেকে কাজ বুঝে নেওয়ারও সময় পাবেন তিনি। পাশাপাশি মধ্যপ্রদেশে ভোট প্রক্রিয়ায় নিজেকে ব্যস্ত রাখতে পারবেন কৈলাসও।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here