kolkata news
Parul

নিজস্ব প্রতিনিধি : বঙ্গ বিজয়ের স্বপ্ন পূরণ হয়নি। পূরণ হয়নি অন্তত শতাধিক আসনের স্বপ্নও। অগত্যা বিজেপির হাত থেকে এ রাজ্যের রাশ কেড়ে নিতে চাইছে আরএসএস! এ ব্যাপারে তারা তাকিয়ে মধ্যপ্রদেশের চিত্রকূটের দিকে। শুক্রবার থেকে সেখানেই শুরু হয়েছে আরএসএসের চারদিনের বার্ষিক বৈঠক। সেখানে এ নিয়ে আলোচনা হতে পারে।  

ads

একুশের ভোটে বাংলা দখল করতে চেয়েছিল বিজেপি। সেজন্য দিল্লি থেকে উড়ে এসেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এ রাজ্যের ২১টি কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছিলেন তিনি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ছোট বড় মিলিয়ে অংশ নিয়েছিলেন ১২১টি কর্মসূচিতে। কেন্দ্রের আরও বেশ কয়েকজন হেভিওয়েট নেতা দিল্লি কলকাতা ডেইলি প্যাসেঞ্জারি করেছেন। তার পরেও নবান্নের কুর্সি রয়েছে অধরা। যার জেরে বিরক্ত আরএসএস নেতৃত্ব।

বিজেপি সূত্রে খবর, দলের ফলে হতাশ আরএসএস  নেতৃত্ব দলকে ঢেলে সাজানোর নির্দেশ দিয়েছে জেপি নাড্ডা ও বিএল সন্তোষদের কাছে। বলা হয়েছে, সংঘের আদর্শ ও বিচারধারার সঙ্গে পরিচিতদের হাতেই রাখতে হবে দলের মূল চালিকাশক্তি। আরএসএসের দফতর কেশব ভবন ও বিজেপির দফতর মুরলীধর সেন লেনের মধ্যেও সমন্বয় রাখতে হবে। সংঘ ঘনিষ্ঠ রাজ্য বিজেপির এক শীর্ষ নেতা বলেন, ভোটের ফল প্রকাশের পরেই দলের হারের ময়নাতদন্ত করে ফেলেছে কেশব ভবন। সেই রিপোর্ট তুলে দেওয়া হয়েছে নাগপুরে সংঘের সর্বোচ্চ নেতৃত্বের হাতে।

তবে নাগপুরে বার্ষিক সভায় রাজনৈতিক কোনও কর্মসূচি নিয়ে আলোচনা হয় না বলেই দাবি দক্ষিণবঙ্গে আরএসএসের প্রচার প্রমুখ বিপ্লব রায়ের। তিনি বলেন, এই বৈঠক সংঘের বার্ষিক কর্মসূচি। এখানে সামাজিক ক্ষেত্রে সংঘের কাজকর্ম, প্রকল্প নিয়ে আলোচনা হয়। রাজনৈতিক কোনও বিষয় নিয়ে আলোচনা হয় না।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here