ডেস্ক: বাইশ গজের মাঠে দেশের জন্য নিজের সেরাটা উজাড় করে দিয়েছেন মাস্টার ব্লাস্টার সচিন টেন্ডুলকর। দেশের জার্সি গায়ে দিয়ে অবসর নেওয়ার পরও সেঞ্চুরি হাঁকাতে ভোলেননি তিনি। রাজনীতির ময়দানেও দুরন্ত সেঞ্চুরি হাঁকালেন মাস্টার ব্লাস্টার। সম্প্রতি রাজ্যসভার সাংসদের মেয়াদ শেষ হয়েছে সচিনের। আর একজন সাংসদ হিসাবে গত ৬ বছরে সরকারের কাছে থেকে যা বেতন ও ভাতা পেয়েছেন তিনি তার সবটাই দান করলেন প্রধানমন্ত্রীর ত্রান তহবিলে।

গত ৬ বছরে একজন সাংসদ হিসাবে প্রায় ৯০ লক্ষ টাকা বেতন পেয়েছেন সচিন। এছাড়াও পেয়েছেন বিভিন্ন ভাতা। সাংসদ পদ ছাড়ার পর সেই পুরো টাকাটাই প্রধানমন্ত্রীর ত্রান তহবিলে দান করেন সচিন। তাঁর সেই দানের প্রাপ্তি স্বীকার করে এদিন চিঠি দেয় প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর। যে চিঠিতে দেশের প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, ‘দুর্গতদের সাহায্য করার জন্যই ব্যবহার করা হবে সচিনের দেওয়া এই অর্থ।’

খেলার মাঠে থাকাকালীনই তাঁকে দেশের সেবায় নিয়োজিত হতে দেখা গিয়েছে একাধিকবার। বলা বাহুল্য রাজনীতিতে এসে দেশ সেবার সেই কাজে বিন্দুমাত্র কার্পণ্য করতে দেখা যায়নি সচিনকে। সাংসদ থাকাকালীন উন্নয়ন তহবিলের অর্থ থেকে দেশের বিভিন্ন জাগায় ১৮৫ টি প্রকল্পের জন্য ৭ কোটি ৪০ লক্ষ টাকা সাহায্য করেন সচিন। দেশের বিভিন্ন স্কুল ও স্কুলের পরিকাঠামোগত উন্নয়নের জন্য প্রায় ৩০ কোটি টাকা দেন তিনি। এছাড়াও প্রধানমন্ত্রীর আদর্শ গ্রাম যোজনা প্রকল্পে দেশের ২ টি গ্রাম দত্তক নেন সচিন। সেখানে একাধিক উন্নয়ন মূলক কাজও করেন তিনি। এবং সব শেষে সাংসদ পদ ছড়ার আগে নিজের ৬ বছরের বেতন ও ভাতা সবটাই দিয়ে দিলেন দেশের উন্নয়নের জন্য।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here