kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, বীরভূম: উত্তর প্রদেশের কুখ্যাত ডন বিকাশ দুবের এনকাউন্টার নিয়ে গোটা দেশ এখন সরগরম। সর্বত্র চলছে এই ঘটনার কাটাছেঁড়া। প্রত্যেক রাজনৈতিক দল নিজের নিজের মতো করে বক্তব্য রেখেছে এই ঘটনার পক্ষে-বিপক্ষে। এবার তা থেকে বাদ যাননি বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল।

কুখ্যাত এই ডনের এনকাউনটার প্রসঙ্গে বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল বলেন, ‘ও যখন কাল সকাল ৬টায় ধরা পড়ে তখনই আমি বলেছিলাম কাল সকাল আটটা পার হবে না। পুলিশ ওকে এনকাউন্টার করে দেবে। না হলে অনেক রথী-মহারথীর নাম জড়িয়ে যেত। ১৯৯০ সালে উত্তরপ্রদেশে যখন বিজেপি সরকার ছিল, তখন এক মন্ত্রীকে হত্যা করেছিল বিকাশ দুবে। তখন যদি তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হতো, তা হলে আজ ও বিকাশ দুবে হতে পারত না। বিজেপির অনেক তাবড় তাবড় নেতার নাম জড়িয়ে যেত। যাদের কথায় চলত বিকাশ। সেই সব নেতাদের কথায় ভোটের সময় বুথ দখল থেকে শুরু করে খুনোখুনি পর্যন্ত করছে বিকাশ দুবে। ও বোকা লোক। পুলিশের কথায় সারেন্ডার করতে গেল। সারেন্ডার যদি করতেই হয়, তা হলে কোর্টে করতে পারত। পুলিশ তা হলে তাকে আর প্রাণে মারতে পারত না।

প্রসঙ্গত, আজ সকালে পুলিশের গুলিতে খতম হয় কানপুরের কুখ্যাত দুষ্কৃতী বিকাশ দুবে। উজ্জয়িনী থেকে তাকে কানপুর নিয়ে আসার পথে তাকে যে গাড়িতে আনা হচ্ছিল সেটি উল্টে যায়। তখন পালানোর চেষ্টা করে বিকাশ। তখন পুলিশ গুলি করতে বাধ্য হয়। পুলিশ সূত্রে জানানো হয়, কানপুরের কাছাকাছি বারা পুলিশ সার্কেলের কাছে হাইওয়েতে অত্যধিক বৃষ্টির ফলে বিকাশকে যে গাড়িতে আনা হচ্ছিল, সেই গাড়িটি উল্টে যায়। সেই সুযোগেই আহত এক পুলিশকর্মীর রাইফেল ছিনিয়ে নিয়ে পালানোর চেষ্টা করে বিকাশ। তাকে আটকাতে গেলে পুলিশের দিকে গুলি ছোড়ে সে। পাল্টা গুলি চালায় পুলিশ। আর তাতেই নিহত হয় বিকাশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here