ডেস্ক : চারিদিকে বেশ হইচই পড়ে গেছে। এবার স্যানইটারি ন্যাপকিনকে জিএসটি’র আওতা থেকে বাদ দেওয়া হচ্ছে। তবে একটাই জল্পনা, স্যানিটারি ন্যাপকিন থেকে জিএসটি থেকে বাদ পড়লেও দাম কি কমবে? না, জিএসটি-এর আওতা থেকে স্যানিটারি ন্যাপকিন বাদ পড়লেও দাম কিন্তু খুব একটা কমছে না।

দেশ জুড়ে জিএসটি লাগু হওয়ার পর থেকেই স্যনিটারি ন্যাপকিনের উপর ১২ শতাংশ হারে কর নেওয়া হত। তবে কেন্দ্রের এই সিদ্বান্তকে ঘিরে উঠছে নানা রকমের প্রশ্ন। বিভিন্ন মহল থেকে প্রতিবাদ জানানো হচ্ছে। এরপরই জিএসটি কাউন্সিল স্যানিটারি ন্যাপকিন থেকে জিএসটিকে বাদ দেওয়ার সিদ্বান্ত নেওয়া হয়। কিন্তু কেন্দ্রের ‘এফআইএইচ’ অর্থাৎ’ফেমিনাইন অ্যান্ড ইনফাইন হাইজিন অ্যাসোসিয়েশন’-কে ইনপুট ট্যাক্স ক্রেডিট না দেওয়ার সিদ্বান্ত নিয়েছে। তবে স্যানিটারি ন্যাপকিনের সঙ্গে যেসব বড় প্রতিষ্ঠানগুলি যুক্ত আছে তাঁরা মনে করছেন, খুব একটা দাম কমার সম্ভাবনা নেই, যদি কমে তাহলে তা ১.৫ শতাংশ থেকে ২.৫ শতাংশ পর্যন্তই কমবে।

অন্যদিকে, স্যনিটারি ন্যাপকিন প্রস্তুতকারি যেসব সংস্থা রয়েছে, তারা নতুন দাম ধার্যের বিষয়ে চিন্তা ভাবনা করছে। তবে এ বিষয়ে P&G এবং জনসন অ্যান্ড জনসনের মতো নামী সংস্থাগুলি মন্তব্য করতে চায়নি। জিএসটি-র তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হলেও ভারতে উৎপাদিত স্যানিটারি ন্যাপকিনকে ইনপুট ট্যাক্স ক্রেডিট দেওয়া হবে না বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ফলে, ক্ষতি এড়ানোর জন্য সংস্থাগুলি খুব একটা বেশি দাম কমাতে পারবে না। তাঁরা এও বলেন, ভারতে উৎপাদিত স্যানিটারি ন্যাপকিন শিল্পকে যদি ইনপুট ট্যাক্স ক্রেডিট করা হয় তাহলে পণ্যের দাম কমিয়ে এই সিদ্বান্তে আসলে সাধারন ক্রেতাদের সুবিধে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here