news bengali

মহানগর ওয়েবডেস্ক: কয়েক কোটি টাকা খরচ করে নিজের প্রত্যেকটি সিনেমার সেট বানান পরিচালক সঞ্জয় লীলা বনশালি। ‘বাজিরাও মাস্তানি’, ‘রামলীলা’ ইত্যাদি সিনেমার জন্য গোটা ফিল্ম সিটিকেই একটি গ্রাম বা শহরের সেটে রূপান্তর করেন সঞ্জয়। সেই পথে হেঁটেই তার আগামী ছবি ‘গাঙ্গুবাঈ কাঠিয়াওয়াড়ি’–র জন্য ৬ কোটি টাকা খরচ করে বানিয়েছিলেন বিশাল বড় সেট। এবার সেই সেটই ভেঙে দিতে চলেছেন পরিচালক।

লক ডাউনের জন্য বিগত এক মাস ধরে বন্ধ সমস্ত ছবির শ্যুটিং। কবে ফের নতুন করে এই ছবির কাজ শুরু হবে জানা নেই সঞ্জয়ের। বিপুল ব্যয়ে নির্মিত সেটটি দীর্ঘদিন ধরে পড়ে থাকায় ভাড়াও গুনতে হচ্ছে সঞ্জয় ও প্রযোজক সংস্থাকে। তাই পরিচালক শেষমেশ সিদ্ধান্ত নিয়েই ফেলেছেন ‘গাঙ্গুবাঈ কাঠিয়াওয়াড়ি’ ছবির সেট ভেঙে ফেলবেন।

এই ছবির শ্যুটিং এর জন্য ফিল্ম সিটির একটি অংশে ছয়ের দশকের কামতিপুরা গ্রাম ফুটিয়ে তুলতে প্রায় ৬ কোটি টাকা ব্যয়ে বিশাল সেট নির্মাণ করেছিলেন সঞ্জয়। যার মধ্যে কিছুটা হলেও হয়েছিল এই ছবির শ্যুটিং। কিন্তু করোনা সংক্রমণ রুখতে দেশজুড়ে লক ডাউন লাগু হওয়ায় আপাতত অনির্দিষ্ট কালের জন্য বন্ধ ছবির কাজ।

বলিউডে সকলের কাছে অজানা নয় সঞ্জয়ের কাহিনী। ‘হাম দিল দে চুকে সনম’ , ‘গুজারিশ’, কিংবা ‘সাওয়ারিয়া’ যে ছবিই সঞ্জয় নির্মাণ করেন সবক্ষেত্রেই নিজের তৈরি সেটেই কাজ করেন পরিচালক। ‘গাঙ্গুবাঈ কাঠিয়াওয়াড়ি’ ক্ষেত্রেও তার ব্যতিক্রম হয়নি। কিন্তু শ্যুটিং পিছিয়ে যাওয়ায় অতিরিক্ত ভাড়া গোনার থেকে নিজের হাতে তৈরি সেট ভেঙে দেওযাই শ্রেয় বলে মনে করেছেন সঞ্জয়। চলতি বছরের সেপ্টেম্বর মাসে মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল আলিয়া ভাট অভিনীত ‘গাঙ্গুবাঈ কাঠিয়াওয়াড়ি’–র কিন্তু শ্যুটিং সম্পূর্ণ না হওয়ায় এই ছবির চলতি বছরে মুক্তি পাওয়ার কোনও সম্ভাবনা নেই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here