সরকারী চাকরির প্যানেলে সানি লিয়নির নাম, চূড়ান্ত গরমিলে চক্ষু চড়কগাছ চাকরিপ্রার্থীদের

0

মহানগর ওয়েবডেস্ক: রাজ্যে বেকার যুবক যুবতীদের চাকরি হচ্ছে না, যেটুকু হচ্ছে সেটুকুও দুর্নীতির পাহাড় ঠেলে। প্রাইমারি হোক বা স্কুল সার্ভিস আদালতে চোখ বোলালেই দেখা যায় বেকার যুবক যুবতিদের কপালে জিজ্ঞাসা চিহ্ন একে সারি বেঁধে দাঁড়িয়ে রয়েছে একের পর এক মামলা। তবে এবার শিক্ষকতার চাকরি নয়, ব্যাপক দুর্নীতির অভিযোগ উঠল রাজ্য সরকারের হেলথ্ ডিপার্টমেন্টে ফেসিলিটি ম্যানেজারের চাকরির লিস্টে। যেখানে স্নাতক ও উচ্চমাধ্যমিকে প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে নিয়োগ করার কথা। মঙ্গলবার সেখানে আবেদনকারীর যে তালিকা সরকারী ভাবে প্রকাশ করা হল তা নিয়ে উঠছে বিস্তর প্রশ্ন। চাকরিপ্রার্থীদের সেই লিস্ট সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ করে সরব হয়ে উঠল চাকরিপ্রার্থীরা। একাধিক গরমিলের পাশাপাশি লিস্টে দেখা গেল পর্ন তারকা সানি লিয়নের নাম।

রাজ্য সরকারের হেলথ ডিপার্টমেন্টের ওই পোস্টে একেবারে শীর্ষে যে প্রার্থীর নাম রয়েছে তার নাম হেলো মারডি। তার পিতার নাম হায় মারডি। উচ্চমাধ্যমিকে তাঁর প্রাপ্ত নম্বর ৯৭.৮০ শতাংশ। এবং স্নাতক স্তরে সে পেয়েছে ৯৬.২২ শতাংশ। বিশাল এই নম্বর দেখেই চক্ষু চড়কগাছ বাকি আবেদনকারীদের। দ্বিতীয়স্থানে যার নাম রয়েছে তাঁর নাম পায়েল ঘোষ মন্ডল। অদ্ভুত ভাবে তাঁর বাবার নাম ও একই পায়েল ঘোষ মন্ডল। তাঁর নম্বরও চোখ কপালে তুলে দেওয়ার মতো উচ্চমাধ্যমিকে ৯৫.৬০ শতাংশ এবং স্নাতকস্তরে ৯৮ শতাংশ। চতুর্থ স্থানে আবার অদ্ভুত মিল রেখে পরিক্ষার্থীর নাম সুদামা এবং তাঁর বাবার নাম কৃষ্ণ। পদবী নেই এমন প্রার্থীও রয়েছে সেখানে, তাঁর নাম সানি। অষ্টম স্থানের বাবা দীপক সেন তো ছেলে দীপক রায়। এই লিস্টে আবার ১০০ শতাংশ নম্বর পেয়েছে এমন ব্যক্তি রয়েছেন। অথচ রাজ্যে উচ্চমাধ্যমিক কিংবা স্নাতকে একেবারে ১০০ শতাংশ নম্বর কেউ কখনও পেয়েছেন এমনটা মনে করতে পারছে না কেউ। লিস্ট ঘেঁটে ১৯ নম্বরে নাম পাওয়া গেল আবার সানি লিয়নের। পর্ন তারকা রাজ্যসরকারের হেলথ ডিপার্টমেন্টে পরীক্ষা দিচ্ছেন ভেবেই আশ্চর্য হচ্ছেন অনেকেই। সব মিলিয়ে প্রার্থী তালিকায় চূড়ান্ত বেনিয়ম প্রকাশ্যে চলে এল এদিন। দেখুন অদ্ভুত সব নামের সেই তালিকা…https://www.wbhrb.in/fm-notice.html

No photo description available.

পরিস্থিতির জেরে রাজ্যসরকারকে দুষে সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব হয়েছেন একাধিক মানুষ। কৌশানি চট্টোপাধ্যায় নামে এক মহিলা এই প্রার্থী তালিকা সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে লিখেছেন, ‘দিদিকে বলো! বলা তো দূরের কথা, চেঁচালেও মনে হয়ে কেউ শুনতে পাবে না।’ এরপর সেই তালিকা তুলে ধরে তাঁর বক্তব্য, ‘মাননীয়া স্বাস্থ্যমন্ত্রী, জেনারেলদের থেকে ১৬০ টাকা করে নিয়ে ফর্ম ফিল আপ করিয়ে ইয়ার্কি হচ্ছে?? কোনো পরীক্ষা নেওয়া হল না, ইন্টারভিউ হল না। ডিরেক্ট ডকুমেন্ট ভেরিফিকেশনের জন্য সানি লিওনকে ডেকে পাঠিয়েছেন?? দুর্নীতির একটা সীমা হয়। লজ্জার?? বলেই তো দিতে পারেন নিজের লোক ঢোকাবেন। এরকম জানলে আমরা আর টাকা দিয়ে ফর্ম ফিল আপ করে পরীক্ষা দিতাম না। পড়াশোনা করে সময় নষ্ট না করে প্রাইভেট চাকরিগুলোয় মন দিতাম। মানছি পরিশ্রম বেশী। তবে দুর্নীতি নেই। আপনাদের কি মনে হয় আমাদের টাকা আর সময় অফুরন্ত??’ তবে স্বাস্থ্য দফতরের নিয়োগ নিয়ে যা হচ্ছে তাতে রীতিমতো তাজ্জব গোটা রাজ্য।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here