মহানগর ওয়েবডেস্ক: সারদা মামলায় ফের একবার হয়ত সুখবর পেতে চলেছেন প্রতারিতরা। সম্প্রতি কলকাতা হাইকোর্টে চলা এই মামলায় শুনানিতে প্রতারিতদের টাকা ফেরত পাওয়ার একটি সম্ভাবনা প্রবল হয়ে উঠল। মামলার শুনানিতে আদালতের তরফে প্রশ্ন করা হল সারদায় প্রতারিতদের জন্য রাজ্য সরকার যে ৫০০ কোটি টাকার তহবিল গড়েছিল, তার মধ্যে এখনও রয়েছে ১৩৮ কোটি টাকা। সেই টাকা সরকার কি করবে? প্রতারিতরা কত টাকা ফেরত পেয়েছেন আর কত বকেয়া রয়েছে, সে বিষয়ে বিস্তারিত নথি আদালতে জমা দেওয়ার নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট।

সারদার আমানতকারীদের টাকা ফেরতের জন্য ২০১৩ সালে শ্যামল সেন কমিশন গঠন করেছিল রাজ্য সরকার। সেই কমিশনের জন্য ৫০০ কোটি টাকা বরাদ্দ করে রাজ্য। যার মধ্যে এখনও বাকি রয়েছে ১৩৮ কোটি টাকা। বরাদ্দ করা অর্থ প্রতারিতরা এখনও কেন পাননি শুক্রবার সে প্রশ্ন তোলে আদালত। কীভাবে সেই টাকা প্রতারিতদের কাছে পৌঁছন সম্ভব সেটাও জানতে চায় বিচারপতি জয়মাল্য বাগচির ডিভিশন বেঞ্চ। আগামী ৪ সপ্তাহের মধ্যে এই বিষয়ে আদালতকে সবটা জানানোর নির্দেশও দেওয়া হয়। এর ঠিক পরই একটি সম্ভাবনা উঁকি দিচ্ছে আবার একবার সারদায় প্রতারিতদের টাকা ফেরত পাওয়ার।

শ্যামল সেন কমিশন নিয়ে ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে কলকাতা হাইকোর্টে দায়ের হয়েছিল একটি মামলা। সেখানে জানতে চাওয়া হয় শ্যামল সেন কমিশনের টাকা সরকার কীভাবে খরচ করবে? সুবীর দে নামে এক আমানতকারীর দায়ের করা এই মামলায় সরকারি আইনজীবীর তরফে জানিয়ে দেওয়া হয় ইতিমধ্যেই ইএসআই ও চেক মারফৎ ৫ লক্ষ আমানতকারীকে টাকা দিয়েছে সরকার। তবে এখনও বাকি পড়ে থাকা টাকার কী হবে তা জানতে চাইল আদালত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here