মহানগর ওয়েবডেস্ক : এক গভীর দুঃসময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে বলিউড। ২০২০ সালে একের পর এক বিদায় সংবাদ। চলতি বছরে বলিউডের তরুণ কিংবা প্রবীণ কিংবদন্তি তারকাদের প্রয়াণের খবর যেন থামতেই চাইছে না।

গতকাল রাতে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছেন জনপ্রিয় কিংবদন্তি কোরিওগ্রাফার সরোজ খান, বলিউডে যাকে সবাই মাস্টার জি বলে ডাকত। বেশ কিছুদিন ধরেই শ্বাসকষ্ট নিয়ে ভুগছিলেন সরোজ। গতকাল গভীর রাতে ৭১ বছর বয়সে প্রয়াত হয়েছেন তিনি।

২২ নভেম্বর ১৯৪৮ তৎকালীন বোম্বেতে (বর্তমানে মুম্বই) জন্মগ্রহণ করেন নির্মলা নাগপাল আমরা যাকে বর্তমানে সরোজ খান নামে চিনি। মাত্র ৩ বছর বয়সে শিশুশিল্পী হিসেবে ‘নাজরানা’ ছবিতে কাজ শুরু করেন সরোজ। তারপর ব্যকগ্রাউন্ড ডান্সার হিসাবে কাজ করতে থাকেন। তখনই তার সঙ্গে আলাপ হয় বি. সোহান লালের যার কাছে নাচের তালিম নিতেন তিনি। পরবর্তীতে মাত্র ১৩ বছর বয়সে তার সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন সরোজ খান।

১৯৭৪ সালে ‘গীতা মেরা নাম’ ছবিতে কোরিওগ্রাফার হিসাবে তার প্রথম কাজ শুরু। যদিও দীর্ঘ ১২ বছর সেভাবে জনপ্রিয়তা পাননি তিনি। তবে অনিল কাপুর–শ্রীদেবী অভিনীত ‘মিষ্টার ইন্ডিয়া’ ছবিতে ‘হাওয়া হাওয়াই’ গানের স্টেপ জনপ্রিয়তা নিয়ে আসে সরোজ খানের জীবনে। তারপর একে একে ‘নাগিনা’, ‘চাঁদনী’ ছবিতে সরোজ খানের কাজ প্রশংসা পায়। শুধু শ্রীদেবী নন মাধুরী দীক্ষিত থেকে শুরু করে ঐশ্বর্য রাই বচ্চন ও হালের আলিয়া ভাট সকলের নাচের গুরু ছিলেন সরোজ খান।

মাধুরী দীক্ষিতের ‘তেজাব’ ছবির ‘এক দো তিন’, ‘বেটা’ ছবির ‘ধক ধক করনে লাগা’ ও ‘থানেদার’ ছবিতে ‘তাম্মা তাম্মা লোগে’ গানগুলি শুধুমাত্র সুচারু নাচের ছন্দ ও কৌশলের জন্য আজও জনপ্রিয় যা নির্মাণের দায়িত্বে ছিলেন সরোজ খান।
বড়পর্দার পাশাপাশি ছোট পর্দাতে একাধিক ডান্স রিয়্যালিটি শো–এর বিচারক হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছিলেন বলিউডের মাস্টার জি। ২০১৯ ‘কলঙ্ক’ ছবিতে নৃত্য পরিচালক হিসেবে শেষ কাজ করেন জনপ্রিয় কোরিওগ্রাফার। তার কাজের জন্য মোট তিনটি জাতীয় পুরস্কার পেয়েছেন সরোজ খান। যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল সঞ্জয় লীলা বনশালির ‘দেবদাস’ ছবির ‘দোলা রে দোলা’ গানটির জন্য। এছাড়াও দেশ বিদেশের নানা পুরস্কার ও একাধিক ফিল্ম ফেয়ারে ভূষিত হন তিনি।

২০১৮ সালে বলিউডে কাস্টিং কাউচ নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করে খবরের শিরোনামে আসেন সরোজ খান। আজ তার মৃত্যুতে বলিউডে কোরিওগ্রাফি র একটি যুগের অবসান ঘটল ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here