Home Featured মন্ত্রিত্বের শিকে ছেঁড়েনি, তাই কি ইস্তফা দিলেন সৌমিত্র?

মন্ত্রিত্বের শিকে ছেঁড়েনি, তাই কি ইস্তফা দিলেন সৌমিত্র?

0
মন্ত্রিত্বের শিকে ছেঁড়েনি, তাই কি ইস্তফা দিলেন সৌমিত্র?
Parul

নিজস্ব প্রতিনিধি : মন্ত্রিত্বের শিকে ছেঁড়েনি। তাই কি বিজেপির যুব মোর্চার রাজ্য সভাপতির পদ ছাড়ছেন সৌমিত্র খাঁ? আজ, বুধ-বিকেলে এই প্রশ্নই ঘুরপাক খেল রাজনীতির আকাশে। যদিও সৌমিত্রের দাবি, তিনি বিজেপিতেই থাকছেন। তবে তাতে ভবি ভুলছে না। বরং অনেকেই সৌমিত্রের তৃণমূল ওয়াপসির সম্ভাবনা দেখছেন।

এক সময় সস্ত্রীক ছিলেন তৃণমূলে। পরে বিজেপিতে যোগ দেন স্ত্রীকে নিয়েই। এলাকায় না থেকেও বাঁকুড়ার সাংসদও হন সৌমিত্র খাঁ। পুরো ক্রেডিট দেন স্ত্রী সুজাতাকে। এর পর একদিন আচমকাই সুজাতা ফিরে যান তৃণমূলে। তা নিয়ে বিবাহ বিচ্ছেদের মামলাও হয় সৌমিত্র-সুজাতার। ততদিনে অবশ্য বিজেপির যুব মোর্চার রাজ্য সভাপতি পদে আসীন হয়েছেন সৌমিত্র। দলের জন্য করছিলেন প্রাণপাত।

বুধবার দিল্লিতে রদবদল হয় কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার। সেখানে ঠাঁই হয়েছে চার বঙ্গ তনয়ের। এঁরা হলেন নিশীথ প্রামাণিক, জন বার্লা, শান্তনু ঠাকুর এবং সুভাষ সরকার। মন্ত্রিত্ব পাবেন বলে ধরে নিয়েছিলেন সৌমিত্র। ডাক পেতে পারেন ভেবে বুধবার পর্যন্ত তিনি ছিলেন দিল্লিতেই। শেষতক তাঁর ঠাঁই হয়নি বদলের মন্ত্রিসভায়। বিজেপির একটি সূত্রের দাবি, এরপর আর নিজেকে ধরে রাখতে পারেননি সৌমিত্র। ইস্তফা দেন যুব মোর্চার রাজ্য সভাপতি পদে। তাঁর দৃঢ় ধারণা হয়, শুভেন্দু দিল্লিতে গিয়ে কান ভাঙানোয় মন্ত্রিত্বে ঠাঁই হয়নি সৌমিত্রের।

প্রসঙ্গত, বিধোধী দলনেতা হওয়ার পরে দিল্লির ডাকে একাধিকবার প্রধানমন্ত্রীর দরবারে হাজির হয়েছিলেন শুভেন্দু। তাতে অসন্তোষ প্রকাশ করেছিলেন বঙ্গ বিজেপির আরও অনেকেই। তবে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন সৌমিত্র। নাম না করে শুভেন্দুর উদ্দেশে তিনি বলেন, যিনি বিরোধী দলনেতা হয়েছেন, তিনি নিজেকে জাহির করছেন, দলটাকে নয়। তিনি বারবার দিল্লি গিয়ে ভুল বুঝিয়ে যাচ্ছেন। তিনি দেখাচ্ছেন নিজেকে বড় বিজেপি নেতা হিসেবে। যেভাবে চলছে, তাতে যুব মোর্চা চালানো মুশকিল ছিল বলেও মন্তব্য করেন তিনি।     

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here