kolkata news
Parul

নিজস্ব প্রতিনিধিফের একবার ডিগবাজি খেলেন বিজেপির যুব মোর্চা সভাপতি সৌমিত্র খাঁ। আজ, শনিবার নিজের টুইটার বায়োতে যুব মোর্চার সভাপতির আগে লিখে দিলেন ‘প্রাক্তন’ শব্দটি। ঘণ্টাখানেক পরেই অবশ্য মুছে দেন প্রাক্তন শব্দটি। ঠিক কী কারণে মুকুল ঘনিষ্ঠ সৌমিত্র একাজ করলেন, তা নিয়ে দ্বিধায় গেরুয়া শিবির।

ads

মন্ত্রিসভার রদবদলের আগে দিল্লি গিয়ে ঘাঁটি গেড়েছিলেন বাঁকুড়ার সাংসদ বিজেপির সৌমিত্র খাঁ। তিনি যুব মোর্চার সভাপতি। তাঁর আশা ছিল, মন্ত্রিসভার এই রদবদলে তাঁর ঠাঁই হবে মন্ত্রিসভায়। তবে শেষমেশ হতাশ হতে হয় সৌমিত্রকে। বাংলা থেকে এবার চারজন মন্ত্রী হলেও, জায়গা হয়নি সৌমিত্রের। এর পরেই দলীয় নেতৃত্বের প্রতি একরাশ ক্ষোভ উগরে দেন সৌমিত্র। দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ এবং বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীকে নিশানা করেন বাঁকুড়ার এই সাংসদ। ইস্তফা দিয়ে দেন যুব মোর্চার সভাপতি পদে। ইস্তফা দেওয়ার ঘণ্টা ছয়েক পরে ফেসবুক লাইভে ফের জানান, বিএল সন্তোষের অনুরোধে ইস্তফা প্রত্যাহার করে নিচ্ছি।

গত অক্টোবরেও একবার পদত্যাগের কথা ঘোষণা করেছিলেন সৌমিত্র। দলের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে সেকথা লিখেওছিলেন। কিছুক্ষণ পরেই অবশ্য ফের ঢোক গেলেন। এদিন আবারও একই কাণ্ড ঘটালেন বাঁকুড়ার সাংসদ। টুইটারের বায়োয় এদিন তিনি যুব মোর্চার সভাপতি শব্দটির আগে লিখে দেন ‘প্রাক্তন’। কিছুক্ষণ পরেই অবশ্য তা মুছে দেন। এতেই শুরু হয়েছেন নানা জল্পনা। দিন কয়েক ধরে সৌমিত্রকে পদ থেকে সরানো হচ্ছে বলে খবর ছড়িয়ে পড়ে। তাই এদিন যখন তিনি প্রাক্তন শব্দটি লেখেন, তখন দলের অনেকেই বিস্মিত হয়েছিলেন। পরে অবশ্য হাঁফ ছেড়ে বাঁচেন। কারণ সৌমিত্র যে মুকুল ঘনিষ্ঠ!       

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here