kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, শিলিগুড়ি: আবার পুলিশকে নিশানা করলেন বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু। শিলিগুড়িতে একটি দলীয় কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে তিনি পুলিশকে নিশানা করে আক্রমণ শানান। রাজ্যে নারীদের ওপর হয়ে চলা অত্যাচার ও নির্যাতনের প্রতিবাদে এদিন শিলিগুড়ি মহকুমাশাসকের কাছে একটি স্মারকলিপি প্রদান করার কর্মসূচি নেওয়া হয়। মিছিল করে কর্মসূচি দিতে যাওয়ার পথে বিজেপি সমর্থকদের আটকে দেয় পুলিশ। এরপর পুলিশকে তীব্র আক্রমণ করেন সায়ন্তন বসু।

শিলিগুড়িতে সায়ন্তন বসু বলেন, ‘এরপর যদি পুলিশ আমাদের মিটিংয়ের পারমিশন না দেয়, তা হলে পারমিশনের দরকার নেই। মঞ্চ খুলে নিয়ে যান। পরের মিটিং থানার ছাদে হবে। এটা আমার নির্দেশ। থানার ছাদে ওসি’র চেয়ার-টেবিল নিয়ে আসবেন। তার ওপর পা তুলে দাঁড়িয়ে সভা করব। শিলিগুড়ি কমিশনারেটেরর কয়েকজন পুলিশ অফিসার চেষ্টা করছেন তৃণমূলের আরও কাছাকাছি যাওয়ার। তাদের উদ্দেশ্যে বলছি, আর সময় নেই, এখনও শুধরে যান। উত্তরকন্যায় এখন তিনটে কাজ হয়। চিটফান্ডের টাকার হিসেব নিকেশ, তৃণমূলের মিটিং আর মজলিস। এর বাইরে উত্তরকন্যায় আর কোনও কাজ হয় না। এটাকে কেন রাখা হয়েছে জানি না।‘

আজ সকালে এই কর্মসূচি নির্ধারিত থাকলেও সকাল থেকে শিলিগুড়িতে লাগাতার বৃষ্টির জেরে বেশ কয়েক ঘণ্টা বিলম্ব হয় বিজেপি’র মিছিল বের করতে। এরপর কয়েক ঘণ্টা পরেই শিলিগুড়ি কাঞ্চনজঙ্ঘা স্টেডিয়ামে সুইমিং পুলের কাছ থেকে বিজেপির মিছিল মহকুমাশাসকের কার্যালয় অভিমুখে রওনা হয়।

মিছিলের নেতৃত্বে ছিলেন বিজেপির রাজ্য মহিলা মোর্চা সভানেত্রী অগ্নিমিত্রা পাল, রাজ্য সম্পাদক সায়ন্তন বসু, বিষ্ণুপুরের সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। মিছিল সুইমিং পুল থেকে বেরিয়ে হিলকার্ট রোড ধরে হাসপাতালের কাছে পৌঁছলে আটকাতে সেখানে পুলিশের তরফে ব্যারিকেড করা হয়। যদিও পুলিশের বাধা অতিক্রম করে বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা মহকুমাশাসকের কার্যালয়ের দিকে এগোতে থাকেন। এরপরই হাশমিচকে শিলিগুড়ি মেট্রোপলিটন পুলিশের বিশাল পুলিশ বাহিনী ব্যারিকেড করে মিছিল আটকে দেয়। যদিও এই মিছিল আটকানোকে কেন্দ্র করে পুলিশের সঙ্গে বিজেপি কর্মী-সমর্থকদের শুরু হয় খণ্ডযুদ্ধ।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here