kolkata news

মহানগর ওয়েবডেস্ক : ‘পার্কসার্কাসে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে অবস্থান-বিক্ষোভ চলাকালীন মৃত্যু হয় যে মহিলার তিনি কি আদৌ ভারতীয় না বাংলাদেশি !’ রবিবার এই প্রশ্ন উস্কে দিয়ে ফের বিতর্কিত মন্তব্য করে বসলেন রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু। তবে শুধু মাত্র এখানেই ক্ষান্ত হননি তিনি। পার্কসার্কাসের যারা আন্দোলন করছেন তারা প্রত্যেকেই বাংলাদেশি বলে দাবি করেন তিনি। এবং খুব শীঘ্রই তাদের ভারতবর্ষ থেকে ‘তাড়ানো হবে’ বলেও এদিন মন্তব্য করেন তিনি।

এদিন পার্কসার্কাসে আন্দোলনরত মৃত মহিলা সম্পর্কে বক্তব্য রাখতে গিয়ে সায়ন্তন বসু বলেন, ‘যিনি আন্দোলন করতে গিয়ে পার্কসার্কাসের মারা গিয়েছেন তিনি কি আদৌ ভারতীয় না বাংলাদেশি ছিলেন? তারা যত আন্দোলনই করুক না কেন সি এ এ এর কোন পরিবর্তন হবে না। বরং সবচেয়ে আগে যাচাই করা উচিত যিনি মারা গেছেন তিনি কোন দেশের নাগরিক। কারণ পার্ক সার্কাসে বাংলাদেশ থেকে এসে যারা বসে আছেন তাদের আমরা দেশ থেকে তাড়িয়ে দেবো।’

এদিন এই প্রসঙ্গে মন্তব্য করতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের প্রতিও তোপ দাগেন তিনি। সায়ন্তন বসু বলেন, ‘আমরা বারবার বলেছি ভারতীয় মুসলমানদের চিন্তার কোন কারণ নেই কিন্তু বাংলাদেশে মুসলমানদের চিন্তার কারণ রয়েছে যথেষ্ট। বাংলাদেশী হিন্দুদের আমরা কোন কাগজ না দেখেই নাগরিকত্ব দেব, এতে কোন বিভ্রান্তির কারণ নেই। কিন্তু বিভ্রান্তি দূর করার বদলে, বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী।’

প্রসঙ্গত, নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে পার্ক সার্কাসে শয়ে শয়ে মহিলা সামিল হয়েছিলেন সিএএ- এনআরসি বিরোধী আন্দোলনে। সেই আন্দোলনের মঞ্চেই অসুস্থ হয়ে পড়েন এক প্রৌঢ়া। জানা গিয়েছে, মৃত প্রৌঢ়া সামিদা খাতুন গত ৭ ডিসেম্বর থেকে পার্ক সার্কাসের ওই অবস্থানে যোগ দিয়েছিলেন। এন্টালির বাসিন্দা ছিলেন তিনি। শনিবার গভীর রাতে হঠাত্ই অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। তাকে তত্ক্ষণাত্ ইসলামিয়া হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তবে সামিদা খাতুনের শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় জন্য তাঁকে চিত্তরঞ্জন হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। তবে শেষরক্ষা হয়নি। হাসপাতালে তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। এদিন এই মৃত মহিলার নাগরিকত্ব বিষয় নিয়ে প্রশ্ন তোলেন রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here