kolkata news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: একটি রাজনৈতিক দল কীভাবে একটি দেশের সঙ্গে চুক্তি করতে পারে? আবেদনকারীকে জিজ্ঞাসা করল দেশের শীর্ষ আদালত। ২০০৮ সালে কংগ্রেসের সঙ্গে চিনা কমিউনিস্ট পার্টির চুক্তির পেছনে গভীর কোনও অসৎ উদ্দেশ্য আছে যার ফলে দেশের সুরক্ষা বিঘ্নিত হয়েছে এরকমই একটি আবেদন শীর্ষ আদালতে জমা পড়লে সেই আবেদনটিকে সরাসরি নাকচ করে দিয়ে সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি এসএ বোবডে জানিয়েছেন, ‘’আমরা এমন একটি কথা শুনছি যা আগে কখনও শোনা যায়নি এবং একই সঙ্গে যা আইনত অবাস্তব। আপনি বলছেন চিন একটি রাজনৈতিক দলের সঙ্গে চুক্তি করেছিল সরকারের সঙ্গে নয়। একটি রাজনৈতিক দলের সঙ্গে কী ভাবে চিন চুক্তি করতে পারে।‘’

আবেদনকারীর পক্ষে আইনজীবী মহেশ জেঠমালানি সওয়াল করতে উঠে বলেন, সংশ্লিষ্ট চুক্তিটিকে প্রকাশ্যে আনা হোক কারণ তার মধ্যে যথেষ্ট অসৎ উদ্দেশ্য রয়েছে যা দেশের নিরাপত্তার প্রশ্নের সঙ্গে জড়িত। কেন এই আবেদন আগে হাইকোর্টে করা হয়নি, প্রধান বিচারপতি প্রশ্ন করলে আবেদনকারী তাঁর আবেদনটি প্রত্যাহার করে নেন।

শশাঙ্ক শেখর ঝা এবং সাংবাদিক স্যাভিও রডরিগেজ কংগ্রেস নেত্রী সোনিয়া গান্ধী এবং রাহুল গান্ধীর বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে একটি আবেদন পেশ করে কংগ্রেসের সঙ্গে চিনা কমিউনিস্ট পার্টির একটি চুক্তির তদন্ত ভার সিবিআই ও এনআইএ–কে দেওযার দাবি জানান। প্রধান বিচারপতি সহ বিচারপতি এ এস বোপান্না ও ভি রামসুব্রামানিয়ম–এর বেঞ্চ তাদের পর্যবেক্ষণে বলেন ‘’আপনারা যা চাইছেন সেটা হাইকোর্ট আপনাদের দিতে পারে। দ্বিতীয়ত হাইকোর্টই হচ্ছে (এই আবেদনের) যথাযথ জায়গা। তৃতীয়ত, হাইকোর্টের রায় থাকলে আমাদের পক্ষেও সুবিধে হয়।‘’

সম্প্রতি পূর্ব লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় ভারত–চিন সৈন্য সংঘর্ষে ২০ জন ভারতীয় জওয়ান শহীদ হলে বিরোধীদের বিশেষ করে কংগ্রেসের সমালোচনার উত্তরে শাসকদলের পক্ষ থেকে ২০০৮ সালের চুক্তির কথা তোলা হয়। শুক্রবার এই বিষয়ে ভারতীয় জনতা পার্টির সর্ব ভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা বিষয়টি নিয়ে টুইটও করেন।

২০০৮ সালে তৎকালীন শাসক দল কংগ্রেস এবং চিনের কমিউনিস্ট পার্টির মধ্যে একটি মউ চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। শীর্ষস্তরে নিয়মিত আলাপ আলোচনা চালানোর সেই চুক্তিটিতে কংগ্রেসের পক্ষ থেকে স্বাক্ষর করেন কংগ্রেসের শীর্ষ নেত্রী সোনিয়া গান্ধী। বেজিং অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে গিয়ে তিনি এই চুক্তি স্বাক্ষর করেছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here