ডেস্ক: ‘লাভ জিহাদ’ নয়, সম্পূর্ণ বৈধ হাদিয়া ও শাফিনের বিয়ে। কেরল হাইকোর্টের রায়কে খারিজ করে এদিন সুপ্রিম কোর্ট এই সিদ্ধান্ত দেয়। এরফলে একদিকে যেমন হাদিয়ার বিয়ে বৈধ স্বীকৃতি পেল, অন্যদিকে কেরল হাইকোর্টের এই বিয়ে বা নিকাহকে ‘অবৈধ’ ঘোষণাও নস্যাৎ হয়ে গেল।

এমনকি শীর্ষ আদালতের তরফে এও জানিয়ে দেওয়া হয়েছে যে একসঙ্গে থাকতে পারবেন হাদিয়া ও শাফিন। যদিও শাফিনের বিরুদ্ধে করা জঙ্গি যোগের এনআইএ মামলা চলবে বলে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে আদালতের তরফ থেকে। প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র, বিচারপতি খানইউলকর ও বিচারপতি চন্দ্রচূড়ের বেঞ্চ এদিন জানিয়ে দেয়, কোনও প্রাপ্তবয়স্ক যুগলের বিয়ের সিদ্ধান্তে হস্তক্ষেপ করতে পারবে না আদালত। কারণ, হাদিয়া এবং শাফিন উভয়েই স্বইচ্ছায় এই বিয়ে করেছেন। হাদিয়াও নিজের ইচ্ছাতেই ধর্মান্তকরণ করেছেন। কোনও তৃতীয় পক্ষ তাঁকে জোরাজুরি করেনি। ফলে এই বিয়েকে ‘লাভ জিহাদ’ আখ্যা দেওয়া আইনত সঠিক নয়।

উল্লেখ্য, মুসলিম ছেলে শাফিনকে বিয়ে করে বিতর্কে জড়ান হিন্দু মেয়ে হাদিয়া। শাফিনের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে ‘লাভ জিহাদ’-এরও। কারণ শাফিনের সঙ্গে বিয়ের পরই ধর্ম পরিবর্তন করেন হাদিয়া। এরপর বিয়েকে লাভ জিহাদের তকমা দিতে সন্ত্রাস যোগের অভিযোগ নিয়ে কেরল হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন হাদিয়ার বাবা। তারপরই কেরল আদালতের সিদ্ধান্তে বড় ধাক্কা খায় এই যুগল। বিয়েটিকে ‘অবৈধ’ বলে ঘোষণা করে কেরল হাইকোর্ট। এমনকি তাদের মেলামেশা বা কথা বলাও বন্ধ করে দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়।

এরপরই কেরল হাইকোর্টের এই সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ সুপ্রিম আদালতের দ্বারস্থ হয় শাফিন। সেই মামলার রায় শুনানির সময়ই বড় স্বস্তি পান এই বিতর্কিত যুগল। সুপ্রিম আদালতের এই সিদ্ধান্তে ফের নিজের স্বামীর সঙ্গে ঘর করার সুযোগ পেয়ে গেলেন হাদিয়া।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here