কাশ্মীরে অবরুদ্ধ শৈশব, সাতদিনের মধ্যে রিপোর্ট তলব শীর্ষ আদালতের

0
705
kashmir children kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: জম্মু-কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা লোপের আগে থেকেই সেখানে বিপন্ন শৈশব৷ ৫ আগস্টের পর থেকে অবরুদ্ধ শৈশব৷ এখন কাশ্মীরে ‘বিচারের বাণী নীরবে নিভৃতে কাঁদে৷’ বিচারের জন্য মানুষ শ্রীনগর হাইকোর্টে যেতে পারছেন না৷ কঠোর প্রশাসন৷ নিষ্ঠুরও বটে৷ জম্মু-কাশ্মীরের প্রশাসন সম্পর্কে একগুচ্ছ মামলা জমা পড়েছে সুপ্রিমকোর্টে৷ এছাড়া নেতা-নেত্রীদের বিনা বিচারে দিনের পর দিন আটক এর বিরুদ্ধেও একাধিক মামলা শীর্ষ আদালতে জমা পড়েছে৷ শিশু অধিকার রক্ষাকর্মী এনাক্ষী গঙ্গোপাধ্যায় ও শান্তা সিনহা কাশ্মীরের শিশুরা অবরুদ্ধ আছে- এই মর্মে মামলার শুনানি হয়েছে শুক্রবার সুপ্রিমকোর্টে প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ এর ডিভিশনাল বেঞ্চে৷ এই বেঞ্চে ছিলেন বিচারক এসএ বোরদে ও এস এ নজির৷

আইনজীবি হুজেফা আহমদি এনাক্ষীদের পক্ষে সওয়াল করেন৷ তিনি জানান,১৬ সেপ্টেম্বর থেকে কাশ্মীরে শিশুরা গৃহবন্দি হয়ে আছে৷ পঠন পাঠন সব বন্ধ হয়ে গিয়েছে৷ তাঁর এই কথা শুনে প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন৷ তিনি তৎক্ষণাৎ জম্মু-কাশ্মীর আহইকোর্টের শিশু বিচার বিভাগ(জুভেনাইল জাস্টিস কমিটি) এর কাছে সাত দিনের মধ্যে এই বিষয় রিপোর্ট সুপ্রমিকোর্টে জমা দেওয়ার নির্দেশ দেন৷ উল্লেখ্য পাকিস্তানের নোবেলজয়ী মালালা ইউসুফজাই একই অভিযোগ রাষ্ট্রসংঘের কাছে করেছেন৷

আইনজীবি হুজেফা অভিযোগ করেন জম্মু-কাশ্মীরের মানুষ বিচারের জন্য হাইকোর্ট পর্যন্ত যেতে পারছেন না৷ তাঁর অভিযোগের তির স্পষ্টতই প্রশাসনের দিকে৷ তিনি সাফ জানান, প্রশাসন মানুষকে বিচার চাইতে বাধা দিচ্ছে৷ তাঁর এই অভিযোগকে একেবারে উড়িয়ে না দিলেও বিচারপতি গগৈ জানান জম্মু কাশ্মীর হাইকোর্ট এর পাঠানো রিপোর্টের সঙ্গে তাঁর অভিযোগ মিলছে না৷ তিনি জানান, উপত্যকার হাইকোর্ট একেবারে উল্টো দাবি করেছে৷ সেই সঙ্গে তিনি বিষয়টি নিয়ে জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসনের পক্ষের আইনজীবি সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতাকে এই নিয়ে আদালতকে রিপোর্ট পেশ করার নির্দেশ দিয়েছেন৷

৫ আগস্ট থেকে জম্মু-কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা লোপ করেছে কেন্দ্র৷ তারপর থেকে বিনা বিচারে শতাধিক ব্যক্তিকে আটক করেছে প্রশাসন৷ এর মধ্যে রাজনৈতিক নেতা-মন্ত্রী থেকে আইনজীবি সমাজের সর্বস্তরের মানুষ আছে৷ এমন পাঁচজনের আটক নিয়ে সুপ্রিমকোর্টে মামলা দায়ের করেছে৷ এই মামলা নিয়েও তুষার মেহতার কাছে জবাবদিহি চেয়েছে শীর্ষ আদালত৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here