শর্তে রাজি থাকলে এখনও বিজেপির সঙ্গে সরকার গড়তে চায় সেনা

0
kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক:  প্রায় একমাস হয়ে গেল এখনও মহারাষ্ট্রে সরকার গড়তে পারল না কোনও দলই৷ একন সেখানে ছয় মাসের জন্য রাষ্ট্রপতি সাসন জারি রয়েছে৷ সরকার গড়া নিয়ে সব দলই সবার সঙ্গে রাজনৈতিক মারপ্যাঁচ চালাচ্ছে৷ সোমবার সংসদে শীতকালীন সংসদ  অধিবেশনে  শরদ পাওয়ারের এনসিপির প্রকাশ্যে প্রশংসা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ তিনি এইভাবে শিবসেনার জায়গায় এনডিএ জোটে শরদের দলকে যোগ দেওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন বেল মনে করেছ রাজন্যতিক মহলের একাংশ৷ অন্যদিকে এনসিপি এনডিএতে আসলে ভবিষ্যতে রাষট্রপতি করা হতে পারে শরদ পাওয়ারকে ৷ অন্যদিকে এখনও এনসিপি- কংগ্রেস জোট শিবসেনাকে সমর্থনের বিষয়টা ঝুলিয়ে রেখেছ৷ কম যাচ্ছে না উদ্ধবের দলও৷ মঙ্গলবার তাদের সাফ কথা, তাদের ৫০- ৫০ শর্তে রাজি থাকলে এখনো বিজেপির সঙ্গে সরকার গড়তে রাজি তারা৷

মঙ্গলবার সঞ্জয় রাউত বলেন, ‘আমাদের সঙ্গে শরদ পাওয়ারের সঙ্গে জোট নিয়ে উদ্বেগের কিছু নেই। খুব দ্রুতই, সেটা ডিসেম্বরের প্রথমেই হতে পারে, মহারাষ্ট্রে সরকার গড়বে শিবসেনার নেতৃত্বাধীন জোট সরকার। এটা হবে স্থায়ী সরকার’। জল্পনা, শিবসেনা, এনসিপি ও কংগ্রেসের জোট এখনও পর্যন্ত চূড়ান্ত নয়, তা আরও বাড়ে শরদ পাওয়ারের সাংবাদিকদের দেওয়া উত্তরে, যখন তাঁকে এনসিপির সঙ্গে আলোচনা নিয়ে শিবসেনার দাবি নিয়ে প্রশ্ন করা হয়, তিনি বলেন ‘সত্যি’? সঞ্জয় রাউত উত্তর দেন, ‘শরদ পাওয়ার কী বলছেন, তা বুঝতে ১০০বার জন্ম নিতে হবে’। তাঁর কথায়, ‘কেউ যখন বিজেপির পাশে ছিল না, আমরা ছিলাম’ ৷ সামনাতে বিজেপিকে বিশ্বাসঘাতর মহম্মদ ঘোরির সঙ্গে তুলনা করা হয়েছে৷

শরদ পাওয়ারকে ছাড়ছে না বিজেপি, মহারাষ্ট্রে সরকার গঠনের দৌড় থেকে শিবসেনাকে আটকাতে তৎপর গেরুয়া শিবির, রাষ্ট্রপতি পদের প্রস্তাবও রাখা হয়েছে বলে সূত্রের খবর। তবে বিজেপির সঙ্গে কোনওরকম লেনদেনের জল্পনা উড়িয়ে দিয়েছেন এনসিপিসুপ্রিমো শরদ পাওয়ার।শিবসেনা দাবি করেছে, যেহেতু কংগ্রেস ও এনসিপির সঙ্গে জোট নিয়ে আলোচনা চলছে, যখন মুখ্যমন্ত্রীত্ত্বের প্রসঙ্গ আসে, নিজেরা যাতে পাঁচ বছরের জন্য মুখ্যমন্ত্রীর পদ পাওয়া যায়, সেটিই দেখা হবে।

শরদ পাওয়ারকে ছাড়ছে না বিজেপি, মহারাষ্ট্রে সরকার গঠনের দৌড় থেকে শিবসেনাকে আটকাতে তৎপর গেরুয়া শিবির, রাষ্ট্রপতি পদের প্রস্তাবও রাখা হয়েছে বলে সূত্রের খবর। সোমবার শরদ পাওয়ার বিজেপির একটি কথার উত্তরে বলেন, ‘বিজেপিকে সমর্থনের কোনও প্রশ্নই নেই। আমরা আমাদের জোটসঙ্গী কংগ্রেসের সঙ্গে আলোচনা চালাচ্ছি’।অবিজেপি সরকারের অপর শরিক কংগ্রেস, মতাদর্শগতভাবে ভিন্ন মেরুতে থাকা শিবসেনার সঙ্গে জোট গড়া নিয়ে উদ্বিগ্ন তারা। সূত্রের খবর, কংগ্রেসের তরফে বলা হয়েছে, কেরলের মুসলিম ভোট খোয়ানোর আশঙ্কা করছে তারা, বিশেষ করে, ওয়ানাদ, যেখান থেকে জয়ী রাহুল গান্ধি।

সোমবার, কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধির সঙ্গে প্রায় এক ঘন্টা বৈঠক করেন শরদ পাওয়ার, তবে আরও একবার, দুই দলই জানিয়ে দেয়, আরও আলোচনা প্রয়োজন। কংগ্রেস সূত্রের খবর মোটামোটি শিবসেনার সঙ্গে সরকার গড়তে রাজি হয়েছে কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটির সদস্যরা৷ এবার কীভাবে সরকারে থাকবে শুধু সেটা চূড়ান্ত করা বাকী কংগ্রেস সবানেত্রীর৷ সাধারণভাবে কংগ্রেস পাঁচ বছরের জন্য শিবসেনার কাউকে মহারাষ্ট্রে মুখ্যমন্ত্রী পদে থাকা নিয়ে কোনও আপত্তি জানাবে না৷ তবে উপমুক্যমন্ত্রী থাকবে কিনা তা নিয়ে এখনও স্পষ্ট কিছু জানাননি কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী৷ অন্যদিকে একেবারেই কোনও সুরাহা না হলে ফের ভোটের প্রস্তুতি নেবে শিবসেনা৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here