kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগান নিয়ে তরজা অব্যাহত। দু’বছর আগে মুখ্যমন্ত্রীকে লক্ষ্য করে ভাটপাড়ায় প্রথমে ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগান দেওয়া হয়। তারপর থেকে জল অনেক দূর গড়িয়েছে। এরপর গত ২৩ জানুয়ারি ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল গ্রাউন্ডে প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির উপস্থিতিতে আবার মুখ্যমন্ত্রীকে লক্ষ্য করে ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগান দেওয়া হয়। পরিকল্পিত ভাবে ‘বেইজ্জত’ করা হয়েছে অভিযোগ তুলে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সেদিন কোনও বক্তব্য রাখেননি।

এই ঘটনা নিয়ে কেন্দ্রীয় বিজেপি সভাপতি জেপি নাড্ডা রাজ্য বিজেপি’র কাছ থেকে রিপোর্ট তলব করেছেন। এছাড়াও সংঘ পরিবার এই ঘটনাকে ভাল চোখে দেখছে না। এমন মিশ্র প্রতিক্রিয়া তৈরি হলে কিছুটা ব্যাকফুটে চলে যায় বিজেপি। যদিও কিছু নেতা এখনও এতে দোষের কিছু দেখছেন না। এদিন আবার তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়া নেতা সব্যসাচী দত্ত এই ঘটনাকে নতুন মাত্রা দিলেন।

​প্রজাতন্ত্র দিবস উপলক্ষে সটলেক এক নম্বর সেক্টরে একটি শোভাযাত্রা আয়োজন করেন সব্যসাচী দত্ত। সেখানে তাঁর কাছে ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগান নিয়ে চলতে থাকা বিতর্ক প্রসঙ্গে জানতে চাওয়া হয়। উত্তরে সব্যসাচী দত্ত বলেন, ‘এটা ভারতবর্ষ। আমরা যে রকম জয় হিন্দ বলছি, যে রকম ভাবে ভারত মাতা কি জয় বলছি, সে রকম ভাবে জয় শ্রীরাম বলছি। এটা পাকিস্তান নয়, এটা ভারত। আর যারা জয় শ্রীরাম শুনে উত্তেজিত হয়ে পড়ছেন তাদের পাকিস্তানে যাওয়ার ব্যবস্থা করে দিচ্ছি।‘ সব্যসাচী দত্তর এই মন্তব্যের তীব্র নিন্দা করেছে তৃণমূল। রাজ্যের বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় বলেছেন, ‘বাংলার ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি জানে না বিজেপি। তাই তারা এমন কথা বলছে।‘

​ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালের স্লোগান-কাণ্ডে দু’ভাগে ভাগ হয়ে গিয়েছে বিজেপি শিবির। প্রকাশ্যে না হলেও কিছু কিছু নেতা এই ঘটনার সঙ্গে সহমত পোষণ করেননি। আবার কিছু নেতা এই ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগান দেওয়ার ঘটনায় কোনও দোষ দেখতে পাচ্ছেন না। সব মিলিয়ে এই বিষয়টি নিয়ে বিজেপি’র এখন অবস্থান কী, তা পরিষ্কার নয়। তবে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব রাজ্য নেতৃত্বের কাছে রিপোর্ট তলব করার বিষয়টি অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here