চাপে পড়ে উন্নাওকাণ্ডের হোতা কুলদীপের বন্দুকের লাইসেন্স বাতিল করল যোগী সরকার

0
kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: ধর্ষণ কাণ্ডে বিপদ উত্তরোত্তর বাড়ছে উত্তরপ্রদেশের বিজেপি বিধায়ক কুলদীপ সেঙ্গারের। নির্যাতিতা যুবতীকে গাড়ি চাপা দিয়ে হত্যার চেষ্টার পর ওই বিধায়কের বিরুদ্ধে খুনের চেষ্টার অভিযোগ দায়ের করার পাশাপাশি এবার তাঁর বন্দুকের লাইসেন্স বাতিল করল সরকার। সব মিলিয়ে আরও চাপ বাড়ল ধর্ষণে অভিযুক্ত কুলদীপের।

ভিভিআইপি বিধায়ক হওয়ার সুবাদে সরকারের তরফে নিজের কাছে ৩ টি বন্দুক রাখার লাইসেন্স পেয়েছিলেন উন্নাও কাণ্ডের হোতা কুলদীপ সিং সেঙ্গার। তবে তাঁর বিরুদ্ধে এহেন একাধিক অভিযোগ ওঠার পর ওই তিনটি বন্দুকের লাইসেন্স বাতিল করল উত্তরপ্রদেশের উন্নাওয়ের জেলাশাসক। বন্দুক, রাইফেল ও রিভলভার এই তিন আগ্নেয়াস্ত্রই লাইসেন্স বাতিল করা হয়েছে। প্রসঙ্গত, বিধায়কের বিরুদ্ধে ধর্ষণের পর খুনের চেষ্টার অভিযোগ দায়ের হওয়ার পরই দল থেকে তাঁকে বরখাস্ত করেছিল বিজেপি। এরপর তাঁর সমস্ত রকম সুযোগ সুবিধায় দাড়ি টানতে তৎপর হল সরকার।

প্রসঙ্গত, কুলদীপের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ আনার পর থেকেই একের পর এক বিপদের সম্মুখীন হতে হয়েছে উন্নাওয়ের নির্যাতিতাকে। পুলিশি হেফাজতে তাঁর পিতার মৃত্যু থেকে শুরু করে, তাঁর পরিবারের একাধিক সদস্যকে পাল্টা জেলে ভরেছে যোগীর পুলিশ। সবশেষে নম্বর প্লেটে কালি লেপা একটি ট্রাক চাপা দিয়ে হত্যার চেষ্টা হয় উন্নাওয়ের নির্যাতিতাকে। জানা যায়, দুর্ঘটনার কয়েকদিন আগেই নাকি সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈকে চিঠি দিয়েছিলেন ওই নিগৃহীতা। জানিয়েছিলেন, তাঁকে হুমকি দেওয়া হচ্ছে! কিন্তু এই বিষয় রঞ্জন গগৈ স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছিলেন, তিনি এমন কোনও চিঠি পাননি, কেন পাননি তাই নিয়ে রেজিস্ট্রারকে তলবও করেন। এই ঘটনা সামনে আসতেই আরও বিতর্ক সৃষ্টি হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here