kolkata bengali news

ডেস্ক: মঙ্গলবার তৃতীয় দফা নির্বাচন৷ আর এই নির্বাচনী আবহেই ফের সরানো হল সাত পুলিশ সুপারকে৷ আগেই কোচবিহার ও মালদার পুলিশ সুপারকে সরিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল প্রশাসন৷ যে সমস্ত অফিসারকে সরানো হল তারা হলেন, রঘুনাথগঞ্জের আইসি শঙ্কর রায়, ফারাক্কার আইসি উদয়শংকর ঘোষ, সামশেরগঞ্জের এএসআই বিধান হালদার, বারাবনি থানার আইসি অজয় মণ্ডল, অন্ডাল থানার আইসি রাজশেখর মুখার্জী, বীজপুর থানার আইসি কৃষ্ণেন্দু ঘোষ। এদিকে বিষ্ণুপুরের এসডিপিও সুকমল দাসকেও সরানো হল। নির্বাচনের বহু আগে থেকেই বিষ্ণুপুরের বিজেপি প্রার্থী সৌমিত্র খাঁ সুকমল দাসের বিরুদ্ধ তাঁকে অন্যায়ভাবে ফাঁসানোর অভিযোগ তুলেছিলেন৷ এরপর থেকেই বিজেপি সুকমল দাসকে অপসারণের দাবি জানিয়ে আসছিল। এছাড়াও বিভিন্ন রাজনৈতিক দলও তাঁর বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ তোলে৷

তারপরেই নির্বাচন কমিশন এ রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিককে বিষ্ণুপুরের এসডিপিএকে সরানোর নির্দেশ দেন৷ পশ্চিম বর্ধমানের অন্ডালের আইলি রাজশেখর মুখার্জির বিরুদ্ধে বাবুল সুপ্রিয় অভিযোগ আনেন। এরপরেই তাঁকেও সরানোর নির্দেশ দিল কমিশন। দীর্ঘদিন ধরে বিরোধীদের অভিযোগ ছিল, পুলিশ রাজ্য সরকারের দলদাস হয়ে কাছ করছে৷

এরপরেই নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ দায়েরও করে বিরোধীরা৷ তারপরেই একে একে এইসব পুলিশ আধিকারিকদের বদলির সিদ্ধান্ত নেয় কমিশন৷ উল্লেখ্য, কোচবিহারের পুলিশ সুপারকে সরিয়ে দেওয়ার পর মালদার পুলিশ সুপারকে সরিয়ে দেয় নির্বাচন কমিশন৷ সারদাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগ তোলা হয় তার বিরুদ্ধে, সেইসঙ্গে তিনি রাজীব কুমারের সঙ্গে জড়িত থেকে সারদাকাণ্ডের সব প্রমাণ লোপাটের অভিযোগ তোলে বিরোধীরা, তারপরেই তাঁকে বদলির নির্দেশ দেয় কমিশন৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here