kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, পুরুলিয়া: করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে সারা দেশজুড়ে লকডাউন জারি আছে। এই অবস্থায় অনেকেই ঘরবন্দি। যারা বিদেশ বা ভিনরাজ্য থেকে ফিরেছেন, তাদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে হোম কোয়ারেন্টাইনের। এই অবস্থায় অনেক শহরাঞ্চলের মানুষ বেরিয়ে পড়েছেন রাস্তায়। পুলিশের লাঠি খেয়েও সচেতন হচ্ছে না। এদিকে, ‘হোম কোয়ারেন্টাইন’ কাকে বলে তা দেখিয়ে দিল জঙ্গলমহল পুরুলিয়ার এক অজ গ্রামের মানুষ।

kolkata news

গ্রামের সাত যুবক চেন্নাই থেকে বাড়ি ফেরেন। ওই সাত যুবককে গাছের ওপরে মাচা করে ১৪ দিনের জন্য কোয়ারেন্টাইনের ব্যবস্থা করল গ্রামবাসীরাই। এরকম প্রশংসনীয় ও নজিরবিহিন কাজ করেছে বলরামপুর ব্লকের গেড়ুযা অঞ্চলের ভাঙিডী গ্রামের বাসিন্দারা। গ্রামবাসীদের কাছ থেকে জানা গিয়েছে, এই গ্রামের সাতজন যুবক কয়েকমাস আগে চেন্নাই যান কাজ করতে। তারপর করোনা ভাইরাসের প্রভাব বেড়ে যাওয়াও তারা কাজ ছেড়ে ট্রেন ধরে বাড়ি ফিরে আসেন। রবিবার তারা খড়্গপুর স্টেশনে নেমে গাড়ি করে সোমবার গ্রামে আসেন।

গ্রামবাসীরা জানিয়েছেন, তাদের আসার খবর পেয়েই আমরা তাদের নিয়ম মতো বাড়িতে না ঢুকিয়ে আগে ভাগে তাদের গাছের ওপর মাচা করে থাকার ব্যাবস্থা করে দিই। যদিও তাদের মেডিক্যাল হলেও গ্রামে আলাদা বাড়ি নেই ওদের রাখার জন্য। তারজন্য গাছের ওপর মাচা বেঁধে খাটিয়া চাপিয়ে একটি গাছের বিভিন্ন ডালে সাতজনের থাকার ব্যাবস্থা করা হয়েছে। তাদের জন্য আলাদা খাবারেরও ব্যবস্থা করা হয়েছে। রান্নার সমস্ত সরঞ্জাম  দেওয়া হয়েছে। এছাড়া তাদের খাদ্যদ্রব্য বাড়ির লোকজন গাছের তলায় রেখে দিয়ে আসছে। ওরা দিনের বেলায় নিচে নেমে রান্না করে আবার গাছের ওপর শুয়ে-বসে দিন কাটাচ্ছেন। গ্রামবাসীরা জানিয়েছেন, আমাদের এটা পুরানো প্রথা। হাতিকে নজর রাখার জন্য এরকম মাচা ব্যবহার করা হলেও এবার ‘হোম কোয়ারেন্টাইনের’ জন্য সেই পদ্ধতি কাজে লাগানো হল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here