ডেস্ক: এসএসসি চাকরিপ্রার্থীদের অনশন রাজ্য সরকারের কতটা চোখ টেনেছে বলা কঠিন, কিন্তু মানুষের মধ্যে যেন পুনরায় মানবিকতা জাগিয়ে তুলেছে। রাজনীতি, শিল্প সবক্ষেত্রের মানুষরাই যেন সাবলীলভাবে মিশে যেতে পারছেন তাঁদের সঙ্গে। চাকরির দাবিতে অনশন, সেই অনশন গিয়ে পড়েছে ২৬ দিনে। কিন্তু রাজ্য সরকারের গঠিত কমিটি কোনও কর্মকাণ্ডই ঘটাতে পারেনি। অর্থাৎ অনশনকারীদের অবস্থান অপরিবর্তিত। তবে জনসংযোগ বাড়ছে। চাকরিপ্রার্থীদের পাশে দাঁড়িয়ে অনশনে যোগ দিয়েছিলেন মন্দাক্রান্তা সেন। এসেছিলেন পোড় খাওয়া রাজনীতিবিদ তথা বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসুও। অনশন মঞ্চে না আসলেও নিজের হাতে চিঠি লিখে তাঁদের পাশে দাঁড়িয়েছেন বর্ষীয়ান অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। এবার কলম হাতে তুলে নিলেন বিশিষ্ট কবি শঙ্খ ঘোষ।

অনশনরত এসএসসি চাকরিপ্রার্থীদের সমর্থনে শঙ্খ ঘোষ লেখেন, ‘প্রায় ১৬ দিন ধরে স্কুল সার্ভিস পরীক্ষায় সফল তিন শতাধিকের উপর যুবক যুবতী খোলা আকাশের নিচে প্রার্থনায় অনশনরত। সবার চোখের সামনে এই ঘটনা ঘটে চলেছে, তার জন্য রাজ্যবাসী হিসাবে আমাদের লজ্জা হওয়া উচিত। এই পরিস্থিতি থেকে ত্রাণ পাবার কোনো উপায় বার করা যায় কিনা, সেই ব্যাপারে ভাবার জন্য কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করবো’। প্রসঙ্গত, মহানগর ২৪x৭-কে সৌমিত্রবাবু বলেন, অনশন আন্দোলনকারীদের মঞ্চে হাজির হতে পারছি না। কিন্তু ওরা যে দাবিতে আন্দোলন করছেন, সেই দাবির যৌক্তিকতা বিচার করে দ্রুত সমস্যার সমাধান চেয়ে রাজ্য সরকারের কাছে আবেদন করেছি। অন্যদিকে, বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসুও সরাসরি রাজ্যকে তোপ দেগেই মন্তব্য করেছিলেন। সুতরাং, একটা বিষয় স্পষ্ট, এসএসসি প্রার্থীদের অবহেলার বিষয় নিয়ে সর্বস্তরেই রাজ্যের প্রতি ক্ষোভ বাড়ছে।

 

উল্লেখ্য, এই অনশন তুলতে পুলিশের সাহায্য নিতে পারে সেনা, খবর ছিল এমনই! সেনার তরফে কলকাতা পুলিশের কাছে বিবৃতিও দেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। জানানো হয়েছে, সে জায়গায় চাকরিপ্রার্থীরা অনশন করছেন সেই জায়গাটি সেনার। অনেকদিনই হল ওই জায়গাতে তারা নিজেদের অনশন কর্মসূচী পালন করছেন। এবার পুলিশের তরফে তাদের সরানোর ব্যবস্থা নেওয়া হোক। তবে তাতেও মনোবল ভাঙেনি অনশনরত চাকরিপ্রার্থীদের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here