kolkata news
Parul

নিজস্ব প্রতিনিধি : মতুয়া ক্ষোভের আঁচে জল ঢালতেই মন্ত্রী করা হচ্ছে ঠাকুরবাড়ির শান্তনু ঠাকুরকে! অন্তত গেরুয়া শিবির সূত্রেই এমন খবর মিলেছে। সেজন্য তড়িঘড়ি দিল্লিতে তলব করা হয়েছে শান্তনুকে। নয়া নাগরিকত্ব আইন লাগু না হওয়ায় ক্ষুব্ধ মতুয়ারা। সেই ক্ষোভের ক্ষতে প্রলেপ দিতেই মন্ত্রী করা হচ্ছে শান্তনুকে।

ads

কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় এ রাজ্যের দুই সাংসদের ঠাঁই হতে পারে বলে বিজেপি সূত্রে খবর। এঁরা হলেন,  কোচবিহারের সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক ও বনগাঁর ঠাকুরনগরের শান্তনু ঠাকুর। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, মতুয়া ক্ষোভে প্রলেপ দিতেই শান্তনুকে মন্ত্রী করার ভাবনা।

পশ্চিমবঙ্গ তো বটেই, গোটা দেশেই মতুয়া ভোট একটা ফ্যাক্টর। বিশেষত মধ্যপ্রদেশে। পশ্চিমবঙ্গের অন্তত ৭০টি বিধানসভা কেন্দ্রে মতুয়ারাই ফ্যাক্টর। এদেশে এই মতুয়াদের সেরা তীর্থ বনগাঁর ঠাকুরনগর। এখানেই রয়েছে বিখ্যাত ঠাকুরবাড়ি। এই ঠাকুরবাড়ির অঙ্গুলিহেলনেই চলেন সিংহভাগ মতুয়া। তাই কী বাম, কী ডান সব রাজনৈতিক দলই চেষ্টা করে প্রথমেই ঠাকুরবাড়ির রাশ হাতে তুলে নিতে। বাম জমানায় ঠাকুরবাড়ির রাশ হাতে ছিল বামদের। তার জেরে মতুয়া অধ্যুষিত কেন্দ্রগুলিতে দীর্ঘদিন দাঁত ফোটাতে পারেননি বিরোধীরা। বাম সূর্য অস্ত গিয়ে নবান্নের তখতে বসে তৃণমূল। বামেদের হঠিয়ে ঠাকুরবাড়ির রাশ নেয় সবুজ শিবির। লোকসভা নির্বাচনের আগে সেখানে থাবা বসায় বিজেপি। ঠাকুরবাড়ির শান্তনুকে সাংসদ করা হয়।
এত করেও মতুয়াদের মন থেকে ক্ষোভ দূর করতে ব্যর্থ বিজেপি। কারণ এখনও লাগু হয়নি নাগরিকত্ব আইন। স্বাভাবিকভাবেই ক্ষুব্ধ মতুয়ারা। এই ক্ষোভের আঁচেই জল ঢালতে শান্তনুকে মন্ত্রী করার ভাবনা। এবং সেই কারণেই তাঁকে দিল্লিতে জরুরি তলব বলে দাবি বিজেপির একটি সূত্রের।        

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here