kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: মহারাষ্ট্র বিধানসভা ভোটের আগেই আর্থিক দুর্নীতির মামলায় এনসিপি নেতা শরদ পাওয়ারকে তলব করেছিল ইডি। ইডি দফতরে হাজিরা দেবেন বলে খোদ শরদ পাওয়ারই জানিয়েছিলেন। কিন্তু মুম্বই পুলিশের অনুরোধে ইডি অফিসে যাওয়ার কর্মসূচি বাতিল করলেন এনসিপি প্রধান। এই বিষয় একটি প্রশ্ন উঠে আসে যে, হঠাৎ পুলিশ কেন তাঁকে ইডি অফিসে যেতে বারণ করল? এক্ষেত্রেই শরদ পাওয়ার বুঝিয়ে দিলেন, তিনি কেন ‘চাণক্য’।

জানা গিয়েছে, ব্যাঙ্ক কেলেঙ্কারি মামলা দায়ের হওয়ার পর ইডির তরফে আনুষ্ঠানিক ভাবে নোটিস পাওয়ার আগেই শুক্রবার ইডি অফিসে দেখা করবেন বলে ঘোষণা করেছিলেন শরদ। তিনি জানিয়েছিলেন, তিনি ব্যাঙ্কের ডিরেক্টর নন, সদস্যও নন। তাহলে কেন তাঁকে এই ব্যাপারে ডাকা হচ্ছে। এই প্রশ্ন তুলে ইডি অফিসে যাওয়ার কথা ঘোষণা করেন তিনি। সেই কারণে ট্র্যাফিক নিয়ন্ত্রণ করে তৈরি ছিল পুলিশও। কিন্তু ইডি অফিসে রওনা হওয়ার কয়েক ঘণ্টা আগেই শরদের বাড়ি যান মুম্বই পুলিশের কর্তারা। এনসিপি নেতাকে জানান, একটি চিঠি পাঠিয়েছে ইডি, তাতে লেখা রয়েছে, তাঁর অফিসে যাওয়ার কোনও দরকার নেই।

প্রসঙ্গত, মহারাষ্ট্র সমবায় ব্যাঙ্ক থেকে প্রায় ২৫ হাজার কোটি টাকা ঋণ নেওয়ার মামলায় নাম জড়িয়েছে শরদ পাওয়ারের। তবে মূল অভিযোগ তাঁর নাম নেই। কিন্তু অভিযোগপত্রে তাঁকে কিংপিন হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। দিনকয়েক আগেই পাওয়ারের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানাও জারি করে করেছিল মুম্বই পুলিশ। তবে এদিন শরদের হাজিরা ঘিরে মুম্বই উত্তপ্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকছিল। জায়গায় জায়গায় প্রদর্শন বিক্ষোভ দেখাচ্ছিল এনসিপি সমর্থকেরা। ইডি দফতরে হাজিরা দেওয়ার আগেই অবশ্য সমর্থকদের উদ্দেশে শরদ লিখেছেন, ‘সমস্ত দলের কর্মী-সমর্থকদের কাছে আর্জি রাখছি, আপনারা দয়া করে ইডি দফতরে জমায়েত করবেন না। পুলিশ ও সরকারি এজেন্সির সঙ্গে সহযোগিতা করুন।’ তবে শেষমেষ রাজনৈতিক চালেই মাত করে দিলেন এই প্রবীণ নেতা। ইডি দফতরে যাওয়ার দরকারই পড়ল না তাঁর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here