share market stock

মহানগর ওয়েবডেস্ক: নোভেল করোনা ভাইরাসকে ‘আন্তর্জাতিক মহামারী’ হিসেবে ঘোষণা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO)। সরকারিভাবে এই ঘোষণার পর থেকেই আন্তর্জাতিক বাজারে রীতিমতো ধস নামতে দেখা গিয়েছে। মুম্বইয়ের দালাল স্ট্রিটের দশা আরও খারাপ। এদিন বম্বে স্টক এক্সচেঞ্জে ২০০৮ সালের পর সবচেয়ে বড় পতন লক্ষ্য করা যায়। নিফটিতেও পতন ঘটে ২০১৭ সালের পর সর্বাধিক। এদিন দুপুরে ২:৫০ নাগাদ প্রায় ৩,০০০ পয়েন্ট নীচে নেমে যায় সেনসেক্স। সূচক নেমে যায় ৩৩,০০০ পয়েন্টের নীচে। নিফটি নামতে নামতে ৯,৫৫০ পয়েন্টে নেমে যায়। বিগত কয়েক বছরে এত খারাপ দিন শেয়ার বাজার দেখেনি বললেই চলে। প্রত্যেক সেক্টরেই দেখা মেলে বিপুল ক্ষতি। যার জেরে একদিনে বিনিয়োগকারীদের ক্ষতি হয় প্রায় ১১ লক্ষ কোটি টাকা।

এদিন বাজার বন্ধ হওয়ার সময় সেনসেক্স নেমে দাঁড়ায় ৩২,৭৭৮.১৪ পয়েন্টে। নিফটি ৮২৫.৩০ সূচক নেমে বন্ধ হয় ৯,৬৩৩ পয়েন্টে। বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, এদিনের মোট ক্ষতির পরিমাণ হয়েছে ১১.৪২ লক্ষ কোটি। শতাংশের হিসেবে ২০০৮ সালের পর প্রথমবার এই প্রথম এতটা খারাপ দিন দেখল শেয়ার বাজার।

শেয়ার বাজারের এহেন দশায় মন্দার মুখ দেখেছে ভারতীয় মুদ্রাও। ডলারের তুলনায় এদিন ৮২ পয়সা পড়ে যায় টাকার দাম। এক ডলারের দাম ভারতীয় মুদ্রায় এখন ৭৪.৫০ টাকা। মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প গতকালই করোনা রুখতে বিশেষ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন। আগামী ৩০ দিন ইউরোপ এবং ব্রিটেনের থেকে সমস্ত নাগরিকদের আমেরিকা যাওয়ার ভিসা বাতিল করেছেন। একই ভাবে ভারতও সিদ্ধান্ত নিয়েছে ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত সমস্ত ট্যুরিস্ট ভিসা বাতিল করার। বিশ্বের প্রথম পাঁচটি অর্থনীতির মধ্যে থাকা তিনটি দেশই (আমেরিকা, চিন, ভারত) নিজেদের সীমান্ত একপ্রকার ‘সিল’ করে দেওয়ার কারণে এর প্রত্যক্ষ প্রভাব পড়েছে দেশীয় এবং বিদেশের বাজারে।

চিন্তা বাড়িয়েছে অপরিশোধিত তেলের দামে পতনও। করোনা ভাইরাসের প্রভাবে যেভাবে যাতায়াত নিয়ন্ত্রিত করা হচ্ছে, তাতে আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের চাহিদা এক ধাক্কায় অনেকটাই কমে গিয়েছে। ফলে কাঁচা তেলের দাম ৫ শতাংশ কমে যায়। এতেও বড় চোট লাগে শেয়ার বাজারে। বিগত কয়েকদিনে প্রায় ১২ লক্ষ কোটির ক্ষতি শুধু ভারতীয় বাজারেই হয়েছে। বিনিয়োগকারীরা বুঝতে পারছেন না কবে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে, তাই ঝুঁকি নিয়ে শেয়ার কেনার আগ্রহ দেখাচ্ছেন না কেউই। ফলে করোনা আতঙ্কের মধ্যে দিন কাটানো বাজার কবে আচ্ছে দিন দেখতে পাবে তা নিয়েও সংশয় থেকে যাচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here