kolkata news
Parul

নিজস্ব প্রতিনিধি : পাওয়ারই জাতীয় রাজনীতির পাওয়ার পয়েন্ট! বলছেন রাজনীতির কারবারিরা। একুশে জুলাইয়ের ভার্চুয়াল মঞ্চে বিজেপি-বিরোধীদের এক হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার ভরকেন্দ্রে যে এনসিপি নেতা শরদ পাওয়ারই, তাও এদিন ঠাপাওয়ারই জাতীয় রাজনীতির পাওয়ার পয়েন্ট!রোঠোরে বুঝিয়ে দিয়েছেন তৃণমূল সুপ্রিমো।

ads

রাজ্যে তৃতীয়বারের জন্য ক্ষমতায় ফিরেই বিজেপিকে উৎখাত করার পণ করেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো। সেই কারণেই ইলেকশন স্পেশালিস্ট প্রশান্ত কিশোর ওরফে পিকে-কে দৌত্য করতে পাঠিয়েছিল তৃণমূল। পিকে প্রথম দু’বার দেখা করেন পাওয়ারের সঙ্গে। পরে পাওয়ারের দিল্লির বাড়িতে বিভিন্ন আঞ্চলিক দলের ১৫ জন নেতাকে নিয়ে তৃতীয় ফ্রন্টের সলতে পাকানোর কাজ শুরু করেন বলে তৃণমূলের একটি সূত্রের খবর। সেখানে পাওয়ারকে রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী হতেও অনুরোধ করা হয় বলে খবর। বছর ঘুরলেই রাষ্ট্রপতি নির্বাচন। সেই নির্বাচনেই পাওয়ার যাতে বিরোধীদের প্রার্থী হন, সেই আবেদনই করা হয়। কারণ বর্ষীয়ান পাওয়ার দীর্ঘকালের সাংসদ। দেশের প্রায় প্রতিটি রাজনৈতিক দলের কাছেই গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে তাঁর। তাই পাওয়ার প্রার্থী হলে সুদৃঢ় করা যাবে বিরোধী ঐক্যকে।

পাওয়ারই যে বিরোধীদের পাওয়ার পয়েন্ট, একুশের মঞ্চ থেকে তা স্পষ্ট করে দিয়েছেন মমতা। তিনি জানিয়েছেন, করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হলে শীতকালে বড় করে ব্রিগেড সমাবেশ হবে। সেখানে আহ্বান জানানো হবে পাওয়ারকে, সনিয়াজিকে। আমন্ত্রণ জানানো হবে বিজেপি-বিরোধী বাকি নেতাদেরও। অর্থাৎ বর্ষীয়ান নেতা পাওয়ারকে সামনে রেখেই জোটবদ্ধ হতে চাইছেন বিরোধীরা। আক্ষরিক অর্থেই বিজেপি বিরোধীদের কাছে তিনিই পাওয়ার পয়েন্ট!  

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here