ডেস্ক: সম্পর্কের টানা পোড়েন চলছে দীর্ঘ ধরে। কর্ণাটকে কুমারস্বামীর শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার পর সম্পর্কের শেষ ইতিটা টানা হয়েই গিয়েছিল। অবশিষ্ট যেটুকুও ছিল তাও শেষ করে দিলেন বিহারের বিজেপি সাংসদ শত্রুঘ্ন সিনহা। সাংবাদিক সম্মেলন করে স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন ২০১৯-এ কেন্দ্র থেকে বিজেপি সরকার হঠাতে কংগ্রেস কিংবা আরজেডির হয়েই ভোটের লড়াইতে নামবেন শত্রুঘ্ন।

রমজান মাস উপলক্ষ্যে বিহারের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী লালু প্রসাদের বাড়িতে ছিল ইফতার পার্টি। এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিলেন লালু পত্নী রাবড়ি দেবী ও তাঁর পুত্র তেজস্বী। সেই অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে নিজের রাজনৈতিক জীবনের আগামী পদক্ষেপ স্পষ্ট করে দিলেন বলিউড থেকে রাজনীতিতে জাঁকিয়ে বসা শত্রুঘ্ন সিনহা। ওই অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের সামনে শত্রুঘ্ন বলেন, ‘বিজেপি নয়, আগামী লোকসভা নির্বাচনে কংগ্রেস কিংবা আরজেডির টিকিটে পাটনা সাহিব কেন্দ্র থেকে ভোটে লড়ব আমি।’ একইসঙ্গে এই অনুষ্ঠান পরিপ্রেক্ষিতে তিনি বলেন, ‘ইফতার আমাদের মিশ্র সংস্কৃতির অঙ্গ। লালু প্রসাদ আমার বন্ধু। আমার পারিবারিক বন্ধুদের সঙ্গে থাকতে পেরে আমি খুশি।’ তবে লালুর বাড়িতে অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকলেও গতকাল তিনি আমন্ত্রিত ছিলেন বিহারের শাসকদল জেডিইউর আয়োজিত ইফতার পার্টিতেও। নীতীশের এই পার্টির দিকে ঘুরেও তাকাননি তিনি।

একইসঙ্গে, নিজের বাড়িতে আয়োজিত ইফতার পার্টির অনুষ্ঠানে শত্রুঘ্নর সঙ্গে সঙ্গে সাংবাদিকদের সামনে উপস্থিত হন লালু পুত্র তেজস্বীও। সাংবাদিকদের সামনে তিনি বলেন, ‘এদিন আমার বাড়ির অনুষ্ঠানের জন্য দিল্লিতে রাহুল গান্ধীর ইফতার পার্টিতে যোগ দিতে না পারায় আমি অত্যন্ত দুঃখিত। আমাদের এই অনুষ্ঠান পূর্ব নির্ধারিত ছিল। তবে বিরোধী ঐক্যের বার্তা দিতে ওই অনুষ্ঠানে আমাদের দলের সাংসদ মনোজ ঝাঁকে পাঠানো হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here