kolkata news

নিজস্ব প্রতিনিধি :  বিধানসভায় গিয়ে বিধায়ক হিসেবে শপথ নিয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়লেন  তৃণমূলের লাভলি মৈত্র। আজ, বৃহস্পতিবার তিনি শপথ নেন। সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন নবনির্বাচিত বিধায়ক লাভলি।

বাবা চাকরি করতেন বিধানসভায়। ছোটবেলায় কতবার বিধানসভায় এসেছে ছোট্ট লাভলি। তারপর গঙ্গা দিয়ে গড়িয়েছে অনেক জল। সেদিনের সেই ছোট্ট লাভলি আজ বড় হয়েছেন। স্বামী, সংসার নিয়ে সুখের ঘরকন্না। বাবা অবসর নিয়েছেন বিধানসভার চাকরি থেকে। চলতি বিধানসভা নির্বাচনে তাঁকে সোনারপুর দক্ষিণে প্রার্থী করেন তৃণমূলের ভোট ম্যানেজারেরা। প্রধান প্রতিপক্ষ বিজেপিকে গোহারা হারিয়ে এই কেন্দ্রে শেষ হাসি হাসেন লাভলিই।

বৃহস্পতি ও শুক্রবার দুদিন ধরে শপথ নেবেন বিধায়করা। আজ, বৃহস্পতিবার শপথ নেন এক ঝাঁক বিধায়ক। তাঁদের মধ্যে ছিলেন লাভলিও। ঈশ্বরের নামে শপথ নেওয়ার পর সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন লাভলি। তখনই আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন তিনি। বলেন, বাবা বিধানসভায় চাকরি করতেন। ছোটবেলায় বাবার অফিসে যেমন অন্যরা যায়, আমিও তেমন এসেছি। তবে আজ শপথ নিতে বিধানসভায় এসে আমার অন্যরকম অনুভূতি হচ্ছে।

লাভলির স্বামী সৌম্য রায়। পুলিশের পদস্থ কর্তা। পোস্টিং ছিলেন হাওড়ায়। নির্বাচন কমিশন তাঁকে সরিয়ে দেয়। বিপুল ভোটে জয় পেয়ে বিধানসভার অলিন্দে পা রাখেন লাভলি। তার পরেই হয়ে পড়েন স্মৃতিমেদুর।

প্রথমবার লোকসভা নির্বাচনে জয়ী হয়ে যখন প্রধানমন্ত্রী হন নরেন্দ্র মোদি, তখন তিনিও নস্টালজিক হয়ে পড়েছিলেন। রাষ্ট্রপতিভবনে শপথ নিয়ে তিনি যখন প্রথম পদার্পণ করেন লোকসভায়, সেদিনও তিনি প্রণাম করে প্রবেশ করেছিলেন লোকসভায়। চোখে জল এসে গিয়েছিল তাঁর। লাভলি অবশ্য বিধানসভা ভবনকে প্রণাম করেননি, চোখে আসেনি জলও। তবে কেমন যেন নস্টালজিক হয়ে পড়লেন লাভলি। কোথাও যেন এক হয়ে গেলেন মোদি, লাভলি…     

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here