national news

Highlights

  • কংগ্রেস, সিপিএমএর পর এবার উপত্যকার পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলল শিবসেনা
  • ‘পুলওয়ামাকাণ্ডে পুলিশের নাম জড়ালে কী বলবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী?’
  • দলের মুখপত্র ‘সামনা’য় কাশ্মীর পুলিশের ভূমিকা নিয়ে একাধিক প্রশ্ন তোলে শিবসেনা

মহানগর ওয়েবডেস্কঃ সম্প্রতি দুই হিজবুল জঙ্গি সহ ধরা পড়েছে কাশ্মীর পুলিশের ডেপুটি সুপারিটেন্ডেন্ট দাভিন্দর সিং। তার বিরুদ্ধে নিজের বাড়িতে জঙ্গিদের আশ্রয় দেওয়া সহ একগুচ্ছ অভিযোগ উঠেছে। পুলিশের এতবড় পদে থেকে কীভাবে এই ধরণের কাজের সঙ্গে নিজেকে জড়ালেন দাভিন্দর তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে একাধিক। কংগ্রেস, সিপিএমএর পর এবার উপত্যকার পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলল শিবসেনাও। দলের মুখপত্র ‘সামনা’য় কাশ্মীর পুলিশের ভূমিকা নিয়ে একাধিক প্রশ্ন তোলে শিবসেনা।

‘সামনা’য় লেখা হয়েছে, সীমান্তে ক্রমাগত সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘন করা হচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে জঙ্গিদের সাহায্য করছে পুলিশ আধিকারিকরা স্বয়ং। তাদের নিরাপদে সীমান্ত পার করিয়ে এদেশে নিয়ে আসছে রাষ্ট্রপতি পুরস্কার প্রাপ্ত পুলিশ আধিকারিক। সেই অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে তাকে। কাশ্মীরে পুলিশকে অন্য কাজে ব্যবহার করার চেষ্টা করছে সরকার। আজকে যদি পুলওয়ামা হামলার সঙ্গে জড়িত হওয়ায় অভিযোগে কোনও পুলিশ আধিকারিকের নাম ওঠে তাহলে তার কী জবাব দেবেন দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী?’

সম্প্রতি গ্রেফতার হওয়া রাষ্ট্রপতি পুরস্কারপ্রাপ্ত পুলিশ আধিকারিক দাভিন্দর সিংকে জিজ্ঞাসাবাদের পর উঠে আসা একের পর এক তথ্য রীতিমত ভাবাচ্ছে কাশ্মীর পুলিশকে।২০০১ সালে সংসদভবন হামলার দোষী অফজল গুরুও সেসময় দাভিন্দর সিংয়ের বিরুদ্ধে জঙ্গিদের মদত দেওয়ার অভিযোগ এনেছিল। আফজল গুরুর মামলা চলাকালীন সে তাঁর আইনজীবীকে এক চিঠি মারফত জানিয়েছিলেন, দাভিন্দর সিংয়ের নির্দেশেই মহম্মদ নামের এক পাকিস্তানি জঙ্গিকে দিল্লিতে বাড়ি ভাড়া করে থাকার সুযোগ করে দিয়েছিল সে। এমনকি একটি গাড়িও ভাড়া করে দিয়েছিল ওই জঙ্গিকে, যেই গাড়ি পরে সংসদ হামলায় ব‍্যবহৃত হয়েছিল।

এদিকে কিছুদিন আগেই এই একই প্রশ্ন তুলে নিজের ট‍্যুইটারে কংগ্রেস মুখপাত্র রণদীপ সিং সূরজেওয়ালা লিখেছিলেন, “দাভিন্দর সিং কে? ২০০১ সালে সংসদ আক্রমণে তাঁর ভূমিকা কী ছিল? পুলওয়ামার ঘটনাতেই বা ওনার ভূমিকা কি ছিল, যেখানে উনি এসপি ছিলেন? উনি কি নিজের ইচ্ছেতেই হিজাবুল জঙ্গিদের গাড়িতে করে নিয়ে যাচ্ছিলেন, না কি উনি কেবল একটি ঘুঁটি মাত্র, আসল ষড়যন্ত্রকারী অন‍্য কোথাও রয়েছেন? এটা কি অনেক বড় ষড়যন্ত্র?”

এদিন সেই প্রশ্নওই ফের উস্কে দিল শিবসেনা। তবে ‘সামনা’য় এও লেখা হয়েছে, যেহেতু হিজবুল মুজাহিদিনের দুই বড় মাথা ধরা পড়েছে তাহলে আশা করা যাচ্ছে ২৬ জানুয়ারি প্রজাতন্ত্র দিবসের দিন কোনও অশান্তির আশঙ্কা থাকবে না উপত্যকায়। শান্তিতেই প্রজাতন্ত্র দিবস পালন করবে কেন্দ্রশাসিত রাজ্য জম্মু কাশ্মীর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here