মহানগর ওয়েবডেস্ক: গতকাল নির্বাচন চলাকালীন সারাদিন ধরেই সংবাদ শিরোনামে থাকেন ঘাটালের বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষ। শারীরিক হেনস্থা থেকে শুরু করে ভোট লুট, সব অভিযোগই তিনি করেছেন শাসকদল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। কিন্তু বড়সড় অভিযোগ এসেছে তাঁর বিরুদ্ধেও। ভারতীয় নিরাপত্তারক্ষী গুলি চালানোয় গুরুতর আহত হয়েছেন এক ব্যক্তি, খবর ছড়িয়েছে এমনই। কেউ কেউ তো আবার দাবি করেছেন, ভারতী নিজেই বন্দুক নিয়ে গুলি চালিয়েছেন! তবে এই প্রেক্ষিতে ত্রাতার ভূমিকায় দেখা গেছে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে। তাঁর নিদান, কেন্দ্রীয় বাহিনীর ওপর কেউ আক্রমণ করলে তার বুকে গুলি করা উচিৎ!

দিলীপ ঘোষের বক্তব্য,

ভারতী ঘোষের ওপর তো হামলা হয়েছেই, রেহাই পাননি তাঁর নিরাপত্তারক্ষীও। তৃণমূল কর্মীরা তার ওপর হামলা করে তার মাথা পর্যন্ত ফাটিয়ে দিয়েছে। নিরাপত্তারক্ষীদের যদি ওই অবস্থা হয়, তাহলে সাধারণ মানুষের কী হবে, প্রশ্ন তুলেছেন তিনি। একইসঙ্গে বলেন, কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের গুলি চালানোর অধিকার আছে। আর দুষ্কৃতীদের পায়ে নয় বুক লক্ষ্য করে গুলি চালানো উচিৎ।

উল্লেখ্য, গতকাল ভারতী ঘোষের গাড়ি বাজেয়াপ্ত করা হয় কেশপুরে। ইটবৃষ্টি থাকে বাঁচতে সেই সময় স্থানীয় এক মন্দিরে আশ্রয় নেন বিজেপি প্রার্থী। ভারতীকে লক্ষ্য করে ওই মন্দিরের ভেতর ইট ছুড়তে থাকে স্থানীয়রা। অবস্থা বেগতিক বুঝে মন্দিরের পেছনের পাঁচিল টপকে বিজেপি প্রার্থীকে স্থানীয় থানায় নিরাপদ আশ্রয়ে নিয়ে যায় পুলিশ। বিজেপি সূত্রে খবর ওই এলাকা থেকে ভারতীকে সুরক্ষিত ভাবে ‘উদ্ধার’ করে আনার জন্য আলাদা গাড়ি পাঠিয়েছিলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি। পাশাপাশি, দাবি করেন ভারতীকে খুন করার চেষ্টা করা হয়েছে!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here