মহানগর ওয়েডবডেস্ক: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ফের বন্দুকবাজের হামলা। নিউ জার্সিতে বন্দুকবাজের হামলায় প্রাণ গেল পুলিশকর্মী-সহ চার জনের। পুলিশের পাল্টা গুলিতে মৃত্যু হয়েছে দুই বন্দুকবাজেরও। এই ঘটনায় এলাকায় প্রবল আতঙ্ক তৈরি হয়েছে। বন্ধ রাখা হয়েছে স্কুল, কলেজ, অফিস। মঙ্গলবার বিকেলে ম্যানহাটনে হাডসন নদী সংলগ্ন একটি মুদির দোকানে আচমকাই গুলি চালাতে শুরু করে দুই বন্দুকবাজ। পুলিশ প্রধান মাইকেল কেলি জানিয়েছেন, দোকানের ভেতরেই তিন সাধারণ নাগরিক ও দুই বন্দুকবাজ-সহ ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ছাড়াও পরস্পর গুলি বিনিময়ের সময় গুরুতর জখম হন যোশেফ সিলস নামে এক গোয়েন্দা পুলিশকর্মী। পরে তাঁর মৃত্যু হয়। এছাড়াও আহত হয়েছেন আরও দুই পুলিশকর্মী। তবে তাঁদের অবস্থা স্থিতিশীল বলে জানা গিয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে একটি ট্রাকে চড়ে ওই এলাকায় যায় দুই বন্দুকবাজ। চার ঘণ্টা ধরে তাণ্ডব চালায় তারা। তবে এই হামলার পেছনে নাশকতার যোগ এখনও পায়নি পুলিশ। পুলিশের সঙ্গে দুই আততায়ীর গুলি বিনিময় হতে থাকে একটি কবরস্থানের সামনে। এরপরই ওই মুদির দোকানে ঢুকে পড়ে আততায়ীরা। তাদের সঙ্গে গুলির বিনিময় চলতে থাকে। জার্সি শহরের পুলিশ প্রধান মাইকেল কেলি জানিয়েছেন, গানফাইট শেষ হওয়ার পর ওই দোকানের ভেতর থেকে পাঁচ জনের দেহ উদ্ধার হয়েছে। এই ঘটনায় প্রাথমিকভাবে হাডসন নদী সংলগ্ন ম্যানহাটনের সব স্কুল বন্ধ রাখা হয়। বন্ধ ছিল স্থানীয় অফিসও।

প্রসঙ্গত, গুলির যুদ্ধে নিহত যোশেফ গোয়েন্দা বিভাগের অফিসার ছিলেন এবং দীর্ঘ পনেরো বছর ধরে কাজ করছিলেন গোয়েন্দা বিভাগে। দেশের অভ্যন্তরে হিংসা বিরোধী ইউনিটের সদস্য ছিলেন, এবং এই ধরণের ঘটনায় বহুবার আততায়ীদের অস্ত্র সমপর্ণ করতে বাধ্য করেছিলেন তিনি। সাংবাদিকদের জানান পুলিশ প্রধান কেলি। হাডসন কানন্ট্রি প্রসিকিউটর এস্থার সুয়ারেজ জানান, আহত আধিকারিকদের নাম হল রে স্যাঞ্চেজ ও মাইকেল ফার্নান্ডেজ।

নিউ জার্সির শ্যুটআউট নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ট্যুইটে বলেন, ‘নিউ জার্সিতে ভয়াবহ শ্যুট আউটের কথা সবে শুনলাম। কঠিন সময়ে মৃতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা রইল। আমরা পরিস্থিতির দিকে নজর রাখছি।

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here