ডেস্ক: কে আসছে, কে যাচ্ছে, কেই বা থাকছে। কোনও তথ্যই শোভনকে জানাতে রাজি নন পত্নী রত্না চট্টোপাধ্যায়। মঙ্গলবার সকাল থেকেই রত্নার বাড়িতে বাউন্সার নিয়োগ নিয়ে ফের তুমুল চাপানউতোর শুরু হয়। এবার একেবারে মেয়রের বিরুদ্ধে পর্ণশ্রী থানায় অভিযোগ দায়ের করেন তিনি।

ঘটনা হল, শোভন চট্টোপাধ্যায়ের পৈতৃক বাড়িতে বহুদিন ধরেই বসবাস করছেন রত্না চট্টোপাধ্যায়, শোভন থাকেন আলাদা। কিন্তু ফের সমস্যার সূত্রপাত হয় মঙ্গলবার সকালে। নিরাপত্তার খামতি রাখতে চান বলে নিজের বাড়িতে বেসরকারি সংস্থার একজন মহিলা বাউন্সারকে পাঠান মেয়র। এবং বলা হয় কে আসছে কে যাচ্ছে সমস্ত তথ্য কাগজে কলমে নথিভুক্ত করতে। এখানেই আপত্তি তোলেন মেয়রের স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায়।

তাঁর বাড়িতে কে আসছে বা যাচ্ছে সেসব জানাবেন না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন রত্না চট্টোপাধ্যায়। একই সঙ্গে নাম নথিভুক্ত করবেন না বলেও সাফ বার্তা দিয়েছেন তিনি। মঙ্গলবার জনৈক মহিলা বাউন্সার রত্নার সামনে হাজির হওয়ার পর তাঁর সঙ্গে তীব্র বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়েন তিনি। এই অবস্থায় রত্নার সঙ্গে বাক বিতণ্ডায় না গিয়ে সোজা শোভন চট্টোপাধ্যায়কে ফোনে ধরেন ওই বাউন্সার। কিন্তু রত্নার গলা পেয়েই ফোন কেটে দেন শোভন। এরপর আর কথা না বাড়িয়ে পর্ণশ্রী থানায় অভিযোগ জানাতে পৌঁছে যান রত্না চট্টোপাধ্যায়। এই নিয়ে আদালত পর্যন্ত যাওয়ারও হুমকি দেন মেয়র পত্নী।

অন্যদিকে, মেয়রের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে যে গুরুত্বপূর্ণ নথি লোপাট হয়ে যেতে পারে। সংবাদ সূত্রে খবর, শোভনের পৈতৃক বাড়িতে অনেক মামলার নথিপত্র সহ বহুমূল্য সম্পত্তিও রয়েছে। মেয়র আশঙ্কা করছেন, তাঁর সেসব নথি ও সম্পত্তি যে কেউ হাতিয়ে নিতে পারে। সেই কারণেই বাড়ির নিরাপত্তার খাতিরে বাউন্সার নিয়োগ করেছিলেন তিনি।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here