pic-kolkata bengali news

বিশেষ প্রতিবেদক, হালিশহর: বেশ কয়েকদিন ধরেই জোর জল্পনা চলছে, বাবার পথ ধরে কি ছেলেও এবার বিজেপিতেই যাবেন? জল্পনা আরও বৃদ্ধি পেয়েছিল শুভ্রাংশু রায়ের একটি ফেসবুক পোস্ট ঘিরে। যেখানে তিনি ‘অগ্নিপরীক্ষা দিতে দিতে দেওয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে’ এই ধরনের কিছু শব্দের উল্লেখ করেন। এমনকি বেশ কিছু শর্তে বিজেপিতে যোগ দেবেন বলে নিজেও জানান। ফলে একপ্রকার ধরে নেওয়া হচ্ছিল, অর্জুন সিংয়ের পর উত্তর ২৪ পরগনায় তৃণমূলকে বড় ধাক্কাটা দেবেন মুকুল-পুত্র শুভ্রাংশু। আশায় বুধ বাঁধছিলেন বিজেপি সমর্থকেরাও। কিন্তু সে গুড়ে বালি। বুধবারই দীনেশ ত্রিবেদীর সমর্থনে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে রোড শো করেন শুভ্রাংশু রায়।

জল্পনা ছিল, রানাঘাটে মোদীর সভায় বিজেপিতে যোগদান করতে পারেন বীজপুরের তৃণমূল বিধায়ক শুভ্রংশু রায়। কিন্তু লোকসভা ভোট চলাকালীনই মুকুল-পুত্রকে দলে ধরে রাখার কাজটা সেরে ফেললেন অভিষেক। শুভ্রাংশুকে নিয়ে এদিনই রোড শো করলেন তিনি। উত্তর ২৪ পরগনার হালিশহর পুরসভা এলাকায় দীনেশ ত্রিবেদীর সমর্থনে প্রচার মিছিল করেন যুব তৃণমূল সভাপতি অভিষেক বন্দোপাধ্যায়।

হালিশহরের সরকার বাজার খেলার মাঠে বুধবার দুপুরে হেলিকপ্টারে করে প্রচারে আসেন অভিষেক। সেখান থেকে ঘোষপাড়া রোড হয়ে বলদেঘাটা মোড় দিয়ে হুড খোলা গাড়িতে করে স্থানীয় ব্যারাকপুর কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী দীনেশ ত্রিবেদী এবং বীজপুর এলাকার স্থানীয় বিধায়ক শুভ্রাংশু রায়, নৈহাটির বিধায়ক পার্থ ভৌমিককে সঙ্গে নিয়ে মিছিল করেন অভিষেক। হালিশহর পুরসভার পুরপ্রধান অংশুমান রায় সহ অন্যান্য তৃণমূল কাউন্সিলররা এবং কয়েক হাজার তৃণমূল কর্মী সমর্থক এই মিছিলে অংশ নেয়।

এই মিছিল যখন হালিশহর চিত্ত রঞ্জন মোড়ের কাছে আসে তখন অভিষেক বন্দোপাধ্যায় মিছিল থেকে চলে যান। মিছিল শেষে বীজপুর কেন্দ্রের বিধায়ক শুভ্রাংশু রায় বলেন, ‘এই বিশাল মিছিল দেখে আমার মনে হচ্ছে এটা বিজয় মিছিল হচ্ছে। আমি ২৩ মে এরকমই বিজয় মিছিল করতে চাই। দীনেশদা’কে বীজপুর কেন্দ্র থেকে সব থেকে বেশী ভোটে লিড দিতে চাই। আমি অন্য কোথাও প্রচারে যাচ্ছি না। আপাতত নিজের কেন্দ্রে প্রচারে ব্যস্ত আছি। আমার ফেসবুক পোস্ট নিয়ে যে বিতর্ক তৈরি হয়েছিল তা একদম ব্যক্তিগত। সবার সঙ্গে শেয়ার করার বিষয় সেটা নয়।’

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here