মহানগর ওয়েবডেস্ক: বিগত কয়েক বছর ধরে এক নাগাড়ে লড়াই চালানোর পর অবশেষে আইনে পরিণত হয়েছে তিন তালাক বিরোধী বিল। এই তিন তালাক বিলের বিরুদ্ধেই শুরু থেকে সরব হয়েছিলেন তৃণমূল নেতা সিদ্দিকুল্লা চৌধুরী। তবে আইন পাশ হয়ে যাওয়ার পর আর কোনও রাস্তা না দেখে এবার মুসলিম সমাজকে সচেতন করার লক্ষ্য নিয়ে রাস্তায় নামতে চলেছেন তিনি।

রাজ্যসভার পর রাষ্ট্রপতির তরফেও এই আইনে সম্মতি পড়ার পর, মোদী সরকারের তীব্র বিরোধিতা করে সিদ্দিকুল্লা বলেন, মুসলিম মহিলাদের মঙ্গল সাধন করার নামে মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে বিভেদের পথ তৈরি করেছে এই আইন। মুসলিম সংগঠন উলেমা-ই-হিন্দের রাজ্য শাখার প্রধান সিদ্দিকুল্লা চৌধুরী। আর সংগঠনের সদস্যদের নিয়ে আগামী ৪ আগস্ট দিল্লিতে তিন তালাক নিয়ে তাঁদের কর্মসূচি কি হবে তা ঠিক করতে বৈঠকে বসতে চলেছেন সংগঠনের কর্মকর্তারা। জানা যাচ্ছে, দেশের ইমাম ও মুসলিম সম্প্রদায়ের জ্ঞানী মানুষদের সঙ্গে নিয়ে মানুষকে সচেতন করার পাশাপাশি তৈরি করা হবে জনমত।

পাশাপাশি, এই বিল প্রসঙ্গে সিদ্দিকুল্লা বলেন, ‘এই আইনের কোনও রকম প্রয়োজন ছিল না। দেশে এত কিছু হচ্ছে দাঙ্গা, গণপিটুনি এগুলির বিরুদ্ধে তো আইন তৈরি করতে পারে সরকার। রাষ্ট্রপতির কাছে আমার আবেদন বিষয়টি একটু ভেবে দেখুন। তবে এই আইন নিয়ে সিদ্দিকুল্লার মূল আপত্তি ৩ বছরের কারাদণ্ড নিয়ে। তাঁর কথায়, তালাক দেওয়ার জন্য কোনও ব্যক্তিকে যদি ৩ বছর জেলে কাটাতে হয় তবে তাঁর পরিবার চলবে কীভাবে? আইন করে এইসব সমস্যার সমাধান হয় না। এতে সমস্যা আরও বাড়ে। একইসঙ্গে তিনি এটাও জানান, দেশের আইনের সঙ্গে সংঘাতে যাওয়ার কোনও মানে হয় না। কিন্তু মুসলিম পরিবারের সন্তান হিসাবে ধর্ম বিশ্বাস আমার আছে। যদি দেখি কোনও আইন তার পরিপন্থী। তনে প্রতিবাদ আমি জানাতেই পারি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here