news bengali

মহানগর ওয়েবডেস্ক: সমস্ত বিপর্যয়ের মধ্যেই থাকে এক রুপোলি রেখার আভাস–– পরিচিত ও বহু ব্যবহৃত এই প্রবচনটি আবারও সত্যি প্রমাণিত হলো এমন একটা সময়ে যখন সারা পৃথিবীর মানুষ আক্ষরিক অর্থেই জ্বরে বা জ্বরের আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে। যে গঙ্গার দূষণ সংবাদ শিরোনামে ছিল এই কদিন আগেও, সেই নদীরই দূষণের মাত্রা এখন কমে গেছে ৫০ শতাংশের কাছাকাছি, এমনটাই জানা গিয়েছে সাম্প্রতিক পর্যবেক্ষণে।

করোনাভাইরাস সংক্রমণের আতঙ্কে দেশজুড়ে চলছে লকডাউন। বন্ধ সমস্ত কলকারখানা, অফিস–কাছারি। যানবাহনের পরিমাণ রাস্তাঘাটে না থাকার মতো। দেশ স্তব্ধ, অর্থনীতির ভবিষ্যত অন্ধকার। কিন্তু তারই মধ্যে পরিবেশে দূষণের মাত্রার বিপুল উন্নতি তৈরি করেছে রুপোলি রেখা। জনবিরল রাস্তাঘাট ও বাতাসের পরিচ্ছন্নতা এমন মাত্রায় পৌঁছেছে যে বন্য প্রাণীরা নিছক পায়চারি করতে করতে পৌঁছে যাচ্ছে লোকালয়ে, জলন্ধর থেকে দেখা যাচ্ছে ধৌলাধার পর্বতশ্রেণীর বরফাবৃত শৃঙ্গ! আর থমকে যাওয়া দেশের ১১ দিনের মাথায়ই এল আর একটি সুখবর। বিপত্তারিণী গঙ্গার দূষণের বিপদ কমে হয়েছে অর্ধেক!
বেনারস হিন্দু ইউনিভার্সিটি’র কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি বিভাগের অধ্যাপক ড. পি কে মিশ্র সংবাদ সংস্থাকে জানিয়েছেন, গঙ্গার দূষণের দশ ভাগই হয় কারখানার বর্জ্য থেকে। লকডাউনের ফলে সেই কারখানা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় পরিস্থিতির উন্নতি ঘটেছে। আমরা গঙ্গার ৪০ থেকে ৫০ শতাংশ উন্নতি লক্ষ্য করেছি যাকে অবশ্যই উল্লেখযোগ্য উন্নতিই বলা যায়।” তিনি আরও বলেন গাঙ্গেয় অববাহিকায় ১৫–১৬ মার্চ বৃষ্টি হওয়ায় জলস্তরও বেড়েছে ফলে নদীও পরিচ্ছন্ন হয়েছে। লকডাউনের আগের অবস্থার সঙ্গে তুলনা করলে এই উন্নতি যথেষ্ট বেশি বলেই ধরে নেওয়া যেতে পারে বলে মন্তব্য করেন অধ্যাপক মিশ্র।

হিন্দুদের কাছে অতি পবিত্র নদী গঙ্গার এই দূষণ হ্রাসে স্বাভাবিক ভাবেই খুশি বেনারসের সাধারণ মানুষ। ”ক’দিন আগেও আমরা যা দেখে অভ্যস্ত ছিলাম তার থেকে এখন গঙ্গা নদীর অবস্থা অনেকটাই আলাদা। তার অন্যতম কারণ কারখানা সব বন্ধ হয়ে গেছে শুধু তাই নয়, বিভিন্ন ঘাটে মানুষের স্নানও বন্ধ হয়েছে। ১০ দিনেই যদি এই অবস্থা হয় তাহলে আমার বিশ্বাস আগামী দিনে গঙ্গা আবার অতীতের রূপ ফিরে পাবে”, এমনটাই জানিয়েছেন স্থানীয় এক ব্যক্তি। লকডাউনের প্রভাব নদীতে এভাবে পড়বে সেটা কেউই ভাবতে পারেননি। আপাতত বেনারসের মানুষ তাঁদের পবিত্র গঙ্গার এমন স্বচ্ছ জল দেখে আন্তরিক আনন্দ অনুভব করছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here