মধ্যবিত্তের ঘর তৈরিতে ১০ হাজার কোটির তহবিল ঘোষণা করলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী

0
593
sitaraman kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: কথায় আছে ‘বাণিজ্যে বসতঃ লক্ষ্মী’৷  তা এহেন বাণিজ্য প্রায় থেমে গিয়েছিল ভারতে৷ জিডিপি ৫ শতাংশে নেমে গেছে৷ কর্মসংস্থান বাড়ার বদলে কমে গিয়েছে৷ প্রতিটি ক্ষেত্রে কেন্দ্র অর্থনৈতিক অগ্রগতিতে ডাহা ফেল বলে অর্থনীতিবিদদের অধিকাংশই মনে করছেন৷ এক বাড়ি প্রস্তুতকারী সংস্থার কর্মী জানান, স্বল্প ও মধ্য মূল্যের বাড়ি বিক্রি হচ্ছে না৷ ক্রেতাদের একাংশের অভিযোগ টাকা দিয়েও তাঁরা বাড়ি হাতে পাচ্ছেন না বা নির্ধারিত সময়ের চেয়ে অনেক বেশি দেরি হচ্ছে৷ অন্যদিকে ছোটো ও মাঝারি গৃহনির্মান ঠিকাদারেররা নির্দিষ্ট সময়ে বাড়ি তৈরির মতো রসদ জোগার করতে পারছেন না বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই৷ তাঁদের অনেকে বাড়ি তৈরি করতে গিয়ে দেউলিয়া পর্যন্ত হয়ে যাচ্ছেন৷ এদের কথা ভেবে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন মধ্য এবং স্বল্প আয়ের মানুষদের জন্য অল্প খরচে বাড়ি তৈরির প্রকল্পে ১০,০০০ কোটি টাকার তহবিল ঘোষণা করলেন৷ এই তহবিলের ৫০ শতাংশ কেন্দ্র ও অবশিষ্ট জাতীয় জীবন বিমা সংস্থা দেবে৷

দেশের অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে কেন্দ্র এই প্রয়াস৷ কোন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমনের ঘোষণা , এই তহবিলের সুবিধা পাওয়া যাবে সেই সমস্ত আবাসন প্রকল্পে, যেগুলি দেউলিয়া অবস্থায় পৌঁছায়নি  সেগুলি নন-পারফর্মিং অ্যাসেট বলে গণ্য হয়েছে। এই সুবিধাটি সেই সমস্ত আবাসন প্রকল্পগুলিতে দেওয়া হবে, যেগুলির পুঁজি, মধ্যবিত্ত ও স্বল্পমূল্যের মধ্যে ইতিবাচক, এমনটাই জানানো হয়েছে সরকারি বিবৃতিতে। তাঁর কথায়, অসম্পূর্ণ কাজগুলি শেষ করাই এর মূল লক্ষ্য বলে জানানো হয়েছে।১০,০০০ কোটি টাকার সরকারি সাহায্য ছাড়াও, অন্য কোনও বিনিয়োগকারীর থেকেও সমান অঙ্কের বিনিয়োগ করা যাবে। তাঁর মতে, আরও  দেশে সাশ্রয়ী ঘর তৈরির প্রকল্পে, অতিরিক্ত বাণিজ্যিক ঋণের নীতি আরও হাল্কা সহজ করে দেওয়া হবে।গত ছ’বছরে, অর্থনীতি গতি সবচেয়ে নিম্নমুখী হয়েছে, লক্ষাধিক মানুষ চাকরি হারিয়েছেন, সেই মুহুর্তে আবাসন ও রফতানি প্রকল্পকে জোরদার করার পদক্ষেপ কেন্দ্রীয় সরকারের।

রফতানিকারকদের জন্য, রফতানির ওপর দেওয়া কর পরিশোধের জন্য নতুন প্রকল্পের ঘোষণা করেছেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। সেই প্রকল্প থেকে সরকারের ঘরে ৫০,০০০ কোটি টাকার রাজস্ব আসবে বলে আশা করছে কেন্দ্রীয় সরকার৷ বর্তমান নিয়মের জায়গায় নতুন নিয়ম কার্যকর হবে ২০২০-এর জানুয়ারি থেকে, এবং সেটি‘বর্তমান প্রকল্পগুলি থেকে, রফতানিকারকদের একসঙ্গে পাওয়া সুবিধার থেকে নতুন প্রকল্প আরও পর্যাপ্ত সুবিধা দেবে’ বলে আশ্বস্থ করেছেন  কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন।

রফতানিকারদের জন্য পণ্য ও পরিষেবা কর আরও সরলীকরণ করা, এবং রফতানিকারদের জন্য ব্যাঙ্ক ঋণের ক্ষেত্রে আরও বিমাসহ একাধিক ঘোষণা করেন তিনি। কেন্দ্রীয় ্র্থমন্ত্রী নির্মলার কথায়, ‘আরও কম সময়ে রফতানির জন্য বর্তমান পদক্ষেগুলি সময়ে কার্যকর করতে ব্যাপকভাবে প্রযুক্তির ব্যবহার করা হবে’। দেশের রফতানিকে ১ ট্রিলিয়ন ডলারে নিয়ে যেতে চায় সরকার, সেই সময় এই ঘোষণা করলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী।

রফতানিকে উৎসাহ দিতে একাধিক পদক্ষেপ ঘোষণা অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামনেরনির্মলা তাঁর কথায়, রফতানিক্ষেত্রে ব্যাঙ্কঋণে আরও বেশী বিমা দেবে সরকার দেশের অর্থনীতির বৃদ্ধিকে চাঙ্গা তথা রফতানিতে গতি আনতে শনিবার একগুচ্ছ প্রকল্পের কথা ঘোষণা করেন  কেন্দ্রীয় ্র্থমন্ত্রী নির্মলা  সীতারমন৷ এদিনের পদক্ষেপ ব্যাঙ্কগুলিকে অতিরিক্ত ৬৮,০০০ কোটি টাকা রফতানি ঋণ দিতে পারবে, তিনি বলেন, অগ্রাধিকার দেওয়া ক্ষেত্রগুলিতে ঋণনীতি আরও সহজ করবে সরকার।  কংগ্রেস অবশ্য পুরো বিষয়টিকে লোক দেখানো বলে বিদ্রুপ করেছে৷ কংগ্রেসের রাজ্যসভার সাংসদ ততা প্রাক্তন কেন্দ্রীয় আবণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রী আনন্দ শর্মা সাফ জানান, অর্থনীতিকে পুররুজ্জীবিত করতে কেন্দ্রর কাছ থেকে প্যাকেজ ঘোষণার আশা করে ছিলমা৷ তাঁর স্পষ্ট কথা, এসবই মানুষকে বোকা বানাতে অসাড় ঘোষণা কেন্দ্রর৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here