ডেস্ক: দেড় বছর আগে অপহরন হয়ে যাওয়া এক শিশুর কঙ্কাল পাওয়া গেল একটি বাড়ির ছাদে। বাচ্চারা খেলার সময় তাদের বল গিয়ে পরে একটি বাড়ির ছাদে। তখনই তারা একটা কাঠের বাক্স পরে থাকতে দেখে। কৌতূহলবশত বাক্সের মধ্যে কি আছে দেখতে গিয়ে তারা দেখে, একটি কঙ্কাল পরে রয়েছে ওই বাক্সের মধ্যে। ঘটনাটি ঘটেছে দিল্লির কাছেই গরিমা গার্ডেন এলাকায়। এই ঘটনার পর এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে। জানা যাচ্ছে, শিশুটির নাম মহম্মদ জইদ। উদ্ধার হওয়া কঙ্কালটির পোশাক দেখে তার বাবা শনাক্ত করেছেন৷ শিশুটির বাবার দাবি, এই কঙ্কালটি তাঁর অপহরন হওয়া ছেলের।

শিশুটির দেহ উদ্ধার করে পুলিশ ময়না তদন্তের জন্য পাঠিয়েছে। জানা গিয়েছে যে, ২০১৬ সালের ১ ডিসেম্বর বাড়ি থেকে হটাৎ নিখোঁজ হয়ে যায় মহম্মদ জইদ। তখন তার বয়স ছিল মাত্র ৪ বছর। কিছুদিন বাদে জাইদের বাবার কাছে ছেলের মুক্তিপণের জন্য ফোন আসে। ফোন করে প্রায় ১০ লাখ টাকা মুক্তপণ দাবি করা হয়৷ শেষ র্পযন্ত ৮ লাখ টাকায় শিশুটিকে মুক্তি দিতে রাজি হয়ে যায় অপরহরণকারীরা। তখন মুক্তিপনের টাকা নিতে এসে দু’জন দুষ্কৃতি পুলিশের জালে ধরা পরে যায়। কিন্তু তার পরেও জইদের কোনও খোঁজ পাওয়া যায় না। পরে অপরাধীরা জামিন পেয়ে যায়।

এই ঘটনায় বড়সড় প্রশ্নচিহ্নের মুখে পড়তে হয়েছে স্থানীয় প্রশাসনকে৷ এতদিন ধরে বাড়ির ছাদে একটা কঙ্কাল পরে থাকলো আর কেউ টেরও পেল না? নাকি সবকিছু জেনেও না কেউ কেউ বিষয়টি চেপে গিয়েছে? পুলিশ ইতিমধ্যেই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here