ডেস্ক: ‘আচ্ছে দিন’ আসবে এই স্বপ্ন বুকে বেঁধেই তাঁকে ক্ষমতায় এনেছিলেন ভারতের সিংহভাগ জনগণ। সেই আচ্ছে দিন আদৌ এসেছে কিনা টা নিয়ে আগেও একাধিকবার বিতর্ক হয়েছে, আগামীতেও চলবে। কিন্তু সংসদে স্ট্যাডিং কমিটির একটি রিপোর্টে চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ পেয়েছে যে, প্রধানমন্ত্রী যে প্রকল্পগুলির কথা ঘোষণা করেছিলেন তার অর্ধেকের বেশি টাকাও বাস্তবে খরচ হয়নি। এর প্রধান কারণ হিসাবেই উঠে এসেছে অর্থাভাব। বরং চার বছর আগে সাধারণ মানুষ এবং সমাজের উন্নয়নের কথা সামনে রেখে যেসব প্রকল্প ঘোষণা করা হয়েছিল, তার বেশিরভাগই ধুঁকছে অর্থের অভাবে। এমনই চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট পেশ করা হয়েছে ভারতের প্রথম সারির সংবাদ মাধ্যম ‘টাইমস অফ ইন্ডিয়া’-র একটি রিপোর্টে।

সংসদীয় কমিটির রিপোর্টটিকে তুলে ধরার পর যদিও সরকার তরফে এটিকে ভুল বলে আখ্যা দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার প্রকাশিত রিপোর্টে দাবি করা হয়, প্রকল্পের জন্য বরাদ্দ মোট অর্থের মাত্র ২১ শতাংশ টাকা খরচ করা হয়েছে। প্রকল্পগুলির জন্য যেখানে ৫.৬ বিলিয়ন অর্থ বরাদ্দ হয়েছিল, সেখানে খরচ হয়েছে মাত্র ১.২ বিলিয়ন। ভারতের ‘স্মার্ট সিটি’ প্রোগ্রামের হতদরিদ্র ছবিও তুলে ধরা হয়েছে কমিটির রিপোর্টে। বরাদ্দ অর্থ ১.৫ বিলিয়নের মধ্যে সেখানে খরচ হয়েছে মাত্র ২৮ মিলিয়ন। বরাদ্দ অর্থের মাত্র ৩০ শতাংশ ব্যবহার হয়েছে ‘প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা’ এবং স্বচ্ছ ভারতের মত প্রকল্পগুলিতে।

সবমিলিয়ে সময়টা একেবারেই ভাল যাচ্ছেনা এনডিএ সরকারের জন্য। একের পর এক শরিকদের সঙ্গ ছাড়ার খাড়া মাথায় ঝুলছে। তার উপর সরকারের বিরুদ্ধে অনাস্থার প্রস্তাব আনতে সংসদে উঠেপড়ে লেগেছে বিরোধীরা। তারপর স্ট্যাডিং কমিটির এই রিপোর্ট গোদের উপর বিষ ফোঁড়ার মত বেদনাদায়ক হয়ে উঠেছে কেন্দ্রীর সরকারের জন্য। এই রিপোর্ট প্রকাশ্যে আসার পরই বিরোধীরা বলা শুরু করেছেন, ক্ষমতার লোভে ক্ষমতার বাইরে গিয়েই আকাশকুসুম প্রকল্পের স্বপ্ন দেখিয়ে ফেলেছিলেন মোদী। কিন্তু এখন বাস্তবে সেগুলি পরিপূরণ করতে গিয়ে নাকাল হচ্ছে সরকার

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here