ডেস্ক: বিমানবাহিনীর পাইলট অভিনন্দন বর্তমান পাকিস্তানের হাতে ধরা পড়েও দেশে ফিরতে পারল একজন আরএসএস প্রচারকের বীরত্বের জন্য। নরেন্দ্র মোদীর নাম না করেও এভাবেই তাঁর ‘পরাক্রমের’ কথার উল্লেখ করলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি। বিজেপি নেতা সুধাংশু মিত্তালের বই, আরএসএস: ‘বিল্ডিং ইন্ডিয়া থ্রু সেবা’ নামে একটি বই উদ্বোধন করতে গিয়ে এমন মন্তব্য করেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘আজ সংঘ গর্ববোধ করতে পারে কারণ ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে এক ভারতীয় সন্তান দেশে ফিরে আসতে পেরেছে এক স্বয়ংসেবকের পরাক্রমের জন্য।’

বিগত কয়েকদিন ধরে সমস্ত বিরোধী দলের পক্ষ থেকেই বিজেপি পুলওয়ামায় সন্ত্রাসী হাঙ্গামা ও তার প্রতিক্রিয়ায় এয়ার স্ট্রাইকের রাজনীতিকরণ ঘটাচ্ছে বলে অভিযোগ তোলা হচ্ছে। আগা্মী লোকসভা নির্বাচনে ভোট পাওয়ার জন্য বিজেপি সেনা বাহিনীর আত্মত্যাগ ও বীরত্বকে ব্যবহার করছে এই অভিযোগ স্মৃতি ইরানির সাস্প্রতিকতম বক্তব্যে আরও জোরালো হল। গত বুধবার ২১টি বিরোধী দলের বৈঠকের যৌথ বিবৃতিতে জানানো হয় যে, সমস্ত বিরোধী দল ভারত-পাকিস্তানের সাম্প্রতিকতম সংঘাতের পরিপ্রেক্ষিতে সেনাবাহিনীর সঙ্গেই রয়েছে। কিন্তু শাসকদলের নেতারা যেভাবে নির্লজ্জের মতো সেনাবাহিনীর আত্মত্যাগকে রাজনৈতিক কারণে ব্যবহার করছেন তার তীব্র বিরোধিতা করছে সমস্ত বিরোধী দল। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী শহীদদের জাতীয় সৌধ উদ্বোধন করতে গিয়ে প্রতিপক্ষ কংগ্রেসকে আক্রমণ করে শহীদদের প্রতি স্মৃতি জানানোর মঞ্চকে রাজনৈতিক মঞ্চে পরিণত করেছেন বলে বিরোধীদের অভিমত।

উক্ত বই প্রকাশ অনুষ্ঠানে আরএসএস-এর যুগ্ম সম্পাদক দত্তাত্রেয় হোসাবলে বলেন, সমস্ত দেশ উইং কম্যান্ডার অভিনন্দন বর্তমানের সঙ্গে রয়েছে যাকে পাকিস্তান আটক করেছিল। গোটা দেশে এখন দেশপ্রেমের জোয়ার বইছে। সুধাংশু মিত্তাল তাঁর বই সম্বন্ধে সাংবাদিকদের বলেন, আরএসএস সম্পর্কে কিছু ‘মিথ’ ভেঙে দেওয়া এবং আরএসএস-এর প্রকৃত কাজকে তুলে ধরাই তাঁর বইয়ের উদ্দেশ্য। বাস্তবে দেশ গড়ে তোলার কাজে আরএসএস-এর ভূমিকা না জেনে অনেকের মধ্যেই সংঘকে তীব্র আক্রমণ করার প্রবণতা রয়েছে বলে জানান তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here