সমীর গোস্বামী (বিশিষ্ট সাংবাদিক): 

১. অনেকেই হয়তো জানেন না মার্কিন টেনিস তারকা আন্দ্রে আগাসি একটা অভিনব নজির গড়েছিলেন টেনিস দুনিয়ায়। তিনিই প্রথম গোল্ডেন স্লাম সম্মান জিতেছিলেন। এখন প্রশ্ন হল এটা আবার কী সম্মান? আসলে তিনি চারটি গ্র্যান্ড স্লাম ছাড়াও অলিম্পিকে টেনিসে সোনা জিতেছিলেন। এটাকেই গোল্ডেন স্লাম বলে। ১৯৭৬ সালের আটলান্টা অলিম্পিকে টেনিস সিংলসে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলেন তিনি।

২. একবার এক বিখ্যাত টেনিস খেলোয়াড় মুম্বই এয়ারপোর্টে ছিলেন। এয়ারপোর্টের সাউন্ড সিস্টেমে বহুবার তাঁর নাম ঘোষণা করা হয়, ‘মি. বাট গে’ হিসেবে। কিন্তু তিনি তা বুঝতে পারেননি, ফলে ফ্লাইট মিস করেছিলেন সেই বিখ্যাত তারকা। তাঁর নাম ডোনাল্ড বাজ (Don Budge)। এয়ারপোর্টের ঘোষক বাজ’কে ‘বাড গে’ বলে উচ্চারণ করেছিলেন। ফলে আমেরিকান ওই টেনিস তারকা তা বুঝতেই পারেননি।

৩. বিয়নবর্গ বিশ্বের সর্বকালের সেরা টেনিস তারকের মধ্যে অন্যতম। ১৯৭৩ সালে এই বিয়নবর্গকে প্রথম পরাজিত করেছিলেন রজার টেলর ও ১৯৭৪ সালে মিশরের ইসমাইল এন্সাফি।

৪. ছোটবেলায় মোটরগাড়ির প্রতি তাঁর প্রবল ঝোঁক ছিল। তারপর গলফ খেলায় দক্ষ হয়ে ওঠেন। এর মধ্যে আবার কবিতা লেখাও শুরু করেন। কিছুদিন পর গিটার নিয়ে মেতে ওঠেন। তারপর বিশ্বের এক নম্বর টেনিস তারকাও হন। এখন টেনিস ছেড়ে রক ব্যান্ড নিয়ে মেতে বহুমুখী প্রতিভাধর ম্যাটস উইলেন্ডার।

৫. ঘটনাটা অনেকের কাছেই অজানা। এক ভদ্রমহিলা তখন অন্তঃসত্ত্বা। ডাক্তার তাঁকে টেনিস খেলতে বারণ করেছেন। তা সত্ত্বেও তিনি টেনিস খেলতে নেমেছিলেন। এর ফলে ১২ ঘণ্টার মধ্যেই হাসপাতালে ভর্তি হলেন তিনি এবং তিনি এক কন্যাসন্তান প্রসব করলেন। এই কন্যাসন্তানকেই পরবর্তী কালে টেনিস দুনিয়া চিনল জেনিফার কাপ্রিয়াতি নামে।

৬. দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় বিখ্যাত উইম্বল্ডনে ছিল রেডক্রসের অফিস।

৭. এই বিখ্যাত টেনিস তারকা সেনাবাহিনীতে ছিলেন। পাশাপাশি টেনিস অনুশীলনও করতেন। পরে তিনি বিশ্বের এক নম্বর তারকাও হয়েছিলেন। নাম তাঁর স্ট্যান স্মিথ।

৮. টেনিস দুনিয়ায় আর্থার অ্যাশ নমস্য ব্যক্তি। এখনও তাঁকে অনেক মানুষ আদর্শ হিসেবে মনে করেন। ১৯৬৯ সাল, ইউএস ওপেন জিতলেন অ্যাশ। কিন্তু আর্থিক পুরস্কার নিতে অস্বীকার করেন তিনি। সকলেই অবাক। আসলে সেই সময় পেশাদার টেনিস খেলোয়াড় হিসেবে নিজেকে দেখতেন না আর্থার অ্যাশ। তাই আর্থিক পুরস্কার নিতেও অস্বীকার করেন। তাঁর বদলে সেই আর্থিক পুরস্কার নিয়েছিলেন রানার্স আপ টম ওকার।

৯. তিনি একটি দেশের রাজা ছিলেন। একবার টেনিস খেলা দেখে খুব ভাল লেগে যায়। কিন্তু রাজা হয়ে টুর্নামেন্টে খেলবেন কী করে? অবশেষে মি. জি নামে বিভিন্ন টেনিস টুর্নামেন্টে খেলেছিলেন তিনি। তিনি সুইডেনের রাজা পঞ্চম গুস্তাফ।

১০. বাবা ছিলেন গ্রেট ব্রিটেনের নামকরা ফুটবলার। একডাকে সারা বিশ্ব তাঁকে প্রণাম জানায়। কিন্তু তাঁর ছেলে ফুটবলের পাঠ নেননি। বরং টেনিসকেই বেছে নেন তিনি। ১৯৬২ সালে জুনিয়র উইম্বলডন খেতাব জেতেন তিনি। তাঁর নাম জুনিয়র স্ট্যানলি ম্যাথুস।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here