প্রভাবশালীদের বাঁচাতে খুন করা হতে পারে রাজীব কুমারকে! আশঙ্কা প্রকাশ সোমেনের

0
683
kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: শহরের প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে হত্যা করা হতে পারে! এমনই আশঙ্কা প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্রের। রাজীব কুমারকে নিয়ে বিগত কিছু দিন ধরে যে টচানাপোড়েন চলছে এবং সিবিআই-এই যে সক্রিয়তা ধরা পড়ছে, তাতে সারদা মামলা নিয়ে কৌতূহল আরও বেড়েছে। গোটা শহর জুড়ে চিরুনী তল্লাশির ন্যায় কলকাতা প্রাক্তন পুলিশষ কমিশনারকে খুঁজে চলেছে সিবিআই। বিমানবন্দর থেকে হোটেলের রান্নাঘর, কোনও অংশ বাদ দেননি তারা। এরই মাঝে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির এমন বিস্ফোরক বক্তব্য স্বভাবতই বিতর্কের সৃষ্টি করেছে।

সোমেনের বক্তব্য, দিনের আলোর মতো এটা প্রায় পরিষ্কার যে, রাজীব কুমার ধরা পড়লে সমাজের তথাকথিত নামি দামী ও প্রভাবশালী ব্যক্তিদের নামও সামনে চলে আসবে, তাই রাজীব কুমারকে আড়াল করার জন্য প্রাণপাত করছে প্রশাসন। এমতাবস্থায় রাজীব কুমারের প্রাণহানিরও আশঙ্কা করছেন তাঁরা। কারণ, রাজীব কুমার তদন্তকারী সংস্থার সামনে মুখ খুললে অনেক প্রকৃত তথ্যই সামনে চলে আসবে বলে মনে করা হচ্ছে। তাই রাজীব কুমারের মুখ চিরতরে বন্ধ করে দেওয়ার আশঙ্কা প্রকাশ করছেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি। তাঁর দাবি, চাই রাজীব কুমারকে সুস্থ, অক্ষত অবস্থায় অবিলম্বে সিবিআই হেফাজতে গ্রেফতার করা হোক।

তিনি আরও বলেন, সারদা মামলার তদন্তের জন্য রাজীব কুমারকে ‘সিট’-এর প্রধান করা হয়। ২০১৩ সালের এপ্রিল মাসে সারদা চিট ফান্ডের কর্ণধার সুদীপ্ত সেনকে রাজীব কুমারের টিম গ্রেফতার করে জম্বু-কাশ্মীর থেকে। তারপর ২০১৪ সালে মহামান্য সুপ্রিম কোর্ট চিটফান্ড কেলেঙ্কারির তদন্ত সিবিআইকে করার নির্দেশ দেন। দেশের সর্বোচ্চ কোর্টের নির্দেশে রাজীব কুমারকে সারদা চিটফান্ডের সব নথি সিবিআইকে তুলে দিতে হয়। তখনই তাঁর বিরুদ্ধে গুরুত্বপূর্ণ নথি নষ্ট করার অভিযোগ ওঠে। সারদাকাণ্ডে রাজ্য সরকারের অনেক প্রভাবশালী নেতারা জেলও খেটেছে। তাই তারা নিশ্চিত রাজীব কুমার সিবিআই হেফাজতে গেলে তৃণমূল কংগ্রেসের মাথাদের নাম সামনে চলে আসবে। এমনই মন্তব্য করে রাজীব কুমারের হত্যা হওয়ার আশঙ্কা করছেন তিনি।

অন্যদিকে, রাজীবের ফাঁস আরও কড়া করতে শনিবার দেবযানী মুখোপাধ্যায়কে জিজ্ঞাসাবাদ করেছিল সিবিআই। জেরা করা হয়েছিল রাজীব কুমারের স্ত্রীকেও। এবার রাজীবের খোঁজে তাঁর আপ্তসহায়ক শুভম বন্দ্যোপাধ্যায়কে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাক পাঠিয়েছে সিবিআই। শুধু শুভম নয়, ডাকা হয়েছে রাজীব কুমারের ২ দেহরক্ষী ও তাঁর ট্রাভেল এজেন্টকে। এদিকে শনিবারই রাজীব কুমারের স্ত্রী সঞ্চিতা কুমারকে দীর্ঘক্ষণ জেরা করে সিবিআই। যদিও সেখান থেকে তেমন কোনও সূত্র সিবিআই পায়নি বলেই জানা যাচ্ছে সূত্র মারফৎ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here