kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: গতকাল ব্রিগেডে সভা করে প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদি দাবি করেছেন রাজ্যে পরিবর্তন হচ্ছেই। এবারের ভোটে তৃণমূলকে সরিয়ে ক্ষমতায় আসবে বিজেপি। শুধু তাই নয়, প্রধানমন্ত্রী দাবি করেছেন, সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে নবান্ন দখল করবে তাঁর দল। কালকের ব্রিগেড সভার পর আজ আবার মেগা যোগদান কর্মসূচি হতে চলেছে হোস্টিং-এ বিজেপি রাজ্য অফিসে। টিকিট না পেয়ে বেশ কয়েকজন তৃণমূল নেতা ইতিমধ্যেই ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তাদের কয়েকজন বিজেপিতে যোগ দিতে পারেন বলে শোনা যাচ্ছে। শুধু তাই নয়। কংগ্রেস ছেড়ে একজনের যোগদানের কথা শোনা যাচ্ছে। তিনি হলেন প্রাক্তন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি প্রয়াত সোমেন মিত্রের স্ত্রী শিখা মিত্র। আজ বিজেপিতে যোগ দিতে পারেন সাতগাছিয়ার বিদায়ী বিধায়ক সোনালি গুহও।

​সম্প্রতিক কালে বিজেপিতে যাওয়ার যে ঢল নেমেছে, তা মূলত তৃণমূল শিবির থেকে। বাম কংগ্রেস বা অন্য কোনও দল থেকে বড় মাপের কোনও নেতা যোগ দেননি বিজেপিতে। আজ শিখা মিত্র যদি বিজেপিতে যোগদান করেন, তা হলে তা কংগ্রেসের জন্য বড় ধাক্কা হতে পারে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। তবে পুরো বিষয়টি এখন জল্পনার স্তরে আছে। কোনও পক্ষ থেকে এখনও এ বিষয়ে নিশ্চিত কিছু বলা হয়নি।

​এক সময় দু’বার পরপর তৃণমূল বিধায়ক হয়েছিলেন শিখা মিত্র। তখন তাঁর স্বামী ছিলেন তৃণমূল সাংসদ। ২০১৪ সালে সোমেন তৃণমূল ছেড়ে ফিরে আসেন কংগ্রেসে। সেই সময় শিখা স্বামীর পথ ধরে কংগ্রেসে ফেরেন। সাম্প্রতিক কালে কংগ্রেসের অধীর শিবিরের সঙ্গে খুব একটা মধুর সম্পর্ক নয় শিখা মিত্র ও তার পুত্র রোহন মিত্রের। সেই শিক্ষা মিত্র বিজেপিতে যোগ দিতে পারেন বলে শোনা যাচ্ছে। গতকাল বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী তাঁর বাড়িতে শিখা মিত্রের সঙ্গে দেখা করেন। তারপর ছড়ায় এই জল্পনা।

​অন্যদিকে, সোমেন-পুত্র রোহন মিত্র কয়েকদিন আগে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশংসা করে টুইট করেছেন। তাঁর এই টুইট দেখার পর জল্পনা ছড়ায় তিনি বোধহয় এবার তৃণমূলের পথে পা বাড়াতে পারেন। তবে শেষপর্যন্ত মা ও ছেলে কোনও দিকে যান, তা খুব তাড়াতাড়ি দেখা যাবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here