মহানগর ওয়েবডেস্ক: নারকীয়তার সমস্ত উদাহরণ বোধহয় ফিকে হয়ে যাবে ছত্তিশগড়ের এই ঘটনার কাছে। মদ মানুষকে কোথায় নামাতে পারে তার জ্বলন্ত উদাহরণ তুলে দিল গুণধর ছেলে। মদের টাকা না পেয়ে নৃশংস ভাবে মাকে খুন করে মাথার খুলি ফাটিয়ে ঘিলু বের করে কড়াইতে ভাজল মদ্যপ। ঘটনায় নৃশংসতায় শিউরে উঠেছে স্থানীয় থেকে শুরু করে খোদ পুলিশকর্মীরাই। অভিযুক্তকে ইতিমধ্যেই গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে অভিযুক্ত ওই যুবকের নাম সীতারাম ওঁরাও। ছত্তিশগড়ের রায়গড়ে খারসিয়া জেলার বোতালদা গ্রামে মা ফুলো বাইয়ের সঙ্গে থাকত সে। জানা গিয়েছে, মদ্যপ ওই ব্যক্তি রোজ মদ খাওয়ার জন্য টাকা চাইত মায়ের কাছে। অকর্মা ছেলের টাকা চাওয়া নিয়ে বাড়িতে অশান্তি কম ছিল না। ঘটনার দিন মদের টাকা দিতে অস্বীকার করেন মা ফুলো বাই। এতেই ক্ষেপে ওঠে ছেলে। ধারালো অস্ত্র দিয়ে নৃশংসভাবে কুপিয়ে খুন করে সে মাকে। এরপর মায়ের মাথার খুলি ফাটিয়ে ঘিলু বের করে খাবে বলে কড়াইতে ভাজে সে। সেই মুহূর্তে বাড়িতে এসে উপস্থিত হয় অভিযুক্তের ভাইয়ের স্ত্রী। গোটা ঘটনা দেখে চিৎকার করে ওঠে সে। তাঁকে দেখে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায় অভিযুক্ত সীতারাম। পুলিশের খবর দিলে বাড়ির কাছ থেকেই এক ঝোপ থেকে পুলিশ গ্রেফতার করে সীতারামকে।

অভিযুক্তকে গ্রেফতারের পর দফায় দফায় জেরা করা হয় অভিযুক্ত সীতারাম নিজের দোষ কবুল করে পুলিশের কাছে। অভিযুক্তের ভাইয়ের দাবি, ঝগড়া অশান্তিতে তিতিবিরক্ত হয়ে বাড়ি ছেড়ে ছিলাম আমরা। দাদার সঙ্গে থাকার ফলেই এভাবে মারা যেতে হল মাকে। তবে পুলিশের ধারণা সীতারাম শুধুই মদ্যপ নয়, মানসিক ভারসাম্যহীনও।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here